রো’গীর স্বজনকে মা’র’ধর, আ’টক ক্লিনিক পরিচালকসহ আরো ৩

প্রকাশিত: মে ৪, ২০২১ / ১১:১৯অপরাহ্ণ
রো’গীর স্বজনকে মা’র’ধর, আ’টক ক্লিনিক পরিচালকসহ আরো ৩

বগুড়ায় হেপাটাইটিস-বি পরীক্ষার রিপোর্ট ভু’ল দেওয়ার অভি’যোগ করায় রোগীর স্বজনকে মার’ধর করেছে সাইক জেনারেল নামের একটি বেসরকারি হাসপাতালের কর্মচারীরা। পরে বি’ক্ষু’ব্ধ লোকজন হাসপাতাল ভা’ঙ’চুর করে।

মঙ্গলবার (৪ মে) বিকেলে বগুড়া শহরের ঠনঠনিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং হাসপাতালের পরিচালকসহ তিনজনকে আ’ট’ক করে।

আ’ট’ক’কৃতরা হচ্ছেন- সাইক জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক রুহুল কুদ্দুস খন্দকার, ম্যানেজার প্রসেণজিৎ কুমার ও কর্মচারী জাহিদ হোসেন।

জানা যায়, বগুড়ার নিশিন্দারা উপশহরের সৌরভ হোসেন সোমবার (৩ মে) তার বোনকে নিয়ে হেপাটাইটিস বি পরীক্ষার জন্য সাইক জেনারেল হাসপাতালে যান। পরীক্ষার পর রিপোর্টে হেপাটাইটিস বি শনাক্ত হয়। পরে মঙ্গলবার (৪ মে) হেপাটাইটিস বি আসলেই হয়েছে কিনা এমন সন্দেহে তারা পুনরায় ওই পরীক্ষা আরো দুই জায়গায় করে। পরীক্ষার রিপোর্ট দুই জায়গা থেকেই নেগেটিভ আসে।

এরপর সৌরভ ওই রিপোর্টগুলোসহ সাইকের দেওয়া রিপোর্ট নিয়ে আবারও বিকেলে সাইক জেনারেল হাসপাতালে যান। সেখানে রিপোর্ট ডেলিভারি সেন্টারে গিয়ে জানায় তারা যে রিপোর্ট দিয়েছে সেটি ভুল। এ নিয়ে সৌরভের সঙ্গে কর্মচারীদের বাক’বি’ত’ন্ডা শুরু হয়। এক পর্যায় কর্মচারীরা সৌরভকে মার’ধর শুরু করে। সৌরভ হাসপাতাল থেকে দৌঁড়ে বাইরে এসে নিরা’পদে যাওয়ার চেষ্টা করলে হাসপাতালে বাইরে এসেও কর্মচারীরা তাকে মার’ধর করতে থাকে। এ সময় স্থানীয় লোকজন বিষয়টি জানার পর উত্তেজিত হয়ে হাসপাতাল ভা’ঙ’চুর করে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

বনানী ফাঁড়ির ইনচার্জ মাহমুদ হাসান বলেন, পুলিশ সেখানে গিয়ে উ’ত্তে’জিত জনগণকে শান্ত করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছিল, এ সময় পরিচালক রুহুল কুদ্দুস এসে ওই যুবককে পুলিশের সামনেই আবারও কি’ল’ঘু’ষি মা’রে। পরে হাসপাতালের পরিচালকসহ তিনজনকে আ’ট’ক করে থানায় পাঠানো হয়।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন