চাঁদপুরে আন্তঃজেলা চো’র চ’ক্রের পাঁচ সদস্য আ’ট’ক

প্রকাশিত: মার্চ ৩০, ২০২১ / ১১:২২অপরাহ্ণ
চাঁদপুরে আন্তঃজেলা চো’র চ’ক্রের পাঁচ সদস্য আ’ট’ক

চাঁদপুরে দিনের বেলায় একাধিক চুরির ঘটনায় জড়িত দু’র্ধ’র্ষ আন্তঃজেলা চো’র চক্রের ৫ সদস্যকে ঢাকা থেকে আ’ট’ক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) স্নিগ্ধা সরকার প্রেস ব্রিফিং-এ সাংবাদিকদেরকে এমন তথ্য জানান।

এর আগে ২৮ ও ২৯ মার্চ রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশের সহায়তায় তাদেরকে আ’ট’ক করে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। আ’ট’ক চো’র চ’ক্রের সদস্যরা হলেন- যাত্রাবাড়ী করাটিতোলা এলাকার হাড্ডি হিমু (২২), আরিফ হোসেন (২০), কামাল খন্দকার (১৯), নারায়ণগঞ্জ জেলার উদ্দমগঞ্জ সোনারগাঁও এলাকার সিফাত আহমেদ রাসেল (২৩), কুমিল্লা দাউদকান্দি নয়ন নগর এলাকার ইমন হোসেন (২০)।

প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, চাঁদপুর শহরে ইদানিং দিনে দুপুরে বেশ কয়েকটি বাসা বাড়িতে চু’রি’র ঘটনা ঘটেছে। তারই সূত্র ধরে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুর রশীদকে পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ দিক নির্দেশনা দেন। সেই নির্দেশ অনুযায়ী পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুজন কান্তি বড়ুয়া ও উপপরিদর্শক রাশেদুজ্জামান তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে চো’র চ’ক্রের সদস্যদের শনাক্ত করেন।

পরে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুজন কান্তি বড়ুয়া ও উপপরিদর্শক রাশেদুজ্জামান এবং আওলাদ হোসেন সঙ্গীয় সদস্যদের নিয়ে ২৮ মার্চ রাতে ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানার করাটিতোলা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৫ জনকে আ’ট’ক করে থানায় নিয়ে আসে। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি ও আজ মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) চাঁদপুর সদর মডেল থানায় দুটি মা’ম’লা দায়ের করা হয়।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ (সদর সার্কেল) স্নিগ্ধা সরকার সাংবাদিকরেকে বলেন, এই চো’র চ’ক্রের মূল হোতা কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর থানার বলিয়াদী গ্রামের রফিকুল হাসানের ছেলে ইফতেখারুল হাসান সাঈদ (২৪) কে যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশ আ’টক করে। বর্তমানে সে জে’লহাজতে রয়েছে।

তিনি বলেন, ২৯ মার্চ রাতে চাঁদপুর শহরের পালকী হোটেল থেকে আ’সা’মি কালাম ও আরিফকে আ’ট’ক করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী হিমু, রাসেল ও ইমনকে ঢাকা থেকে আ’ট’ক করা হয়। আরিফ ও ইমনের বি’রু’দ্ধে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় ডিএমপির বিভিন্ন থানায় ৫টি এবং হাড্ডি হিমুর বি’রু’দ্ধে ৭টি মা’ম’লা রয়েছে। আমাদের অভি’যান অব্যাহত থাকবে।

ভুক্তভোগী চাঁদপুর শহরের মমিনপাড়া এলাকার সালাউদ্দিন জানান, গত ৭ ফেব্রুয়ারি হাজেরা নিবাসের চতুর্থ তলার ভাড়া বাসা থেকে তার ১৮ ভরি স্বর্ণ, নগদ আড়াই লাখ টাকা ও ২টি ক্রেডিট কার্ড নিয়ে যায় চো’র চ’ক্র।

শহরের জোড়পুকুর পাড় এলাকার পারভেজ ভূঁইয়া রাজু জানায়, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি সিরাজ খানের পঞ্চম তলা ভাড়া বাসা থেকে ১০ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে যায় চো’র চ’ক্র।

প্রেস ব্রিফিং-এর সময় চাঁদপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আবদুর রশিদ, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুজন কান্তি বড়ুয়া, পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্স) মো. মনির আহাম্মদ, উপ-পরিদর্শক মো. রাশেদুজ্জামান, আওলাদ হোসেনসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন