‘আমি মাদরাসায় যাইতাম না, হুজুর আমার লগে খা’রা’প কাম করছে’

প্রকাশিত: মার্চ ২৯, ২০২১ / ১১:৫০অপরাহ্ণ
‘আমি মাদরাসায় যাইতাম না, হুজুর আমার লগে খা’রা’প কাম করছে’

প্রতিদিনের মতো মাদরাসা ছুটির পর শিশুটি বাড়িতে এসে মায়ের কাছে কিছু একটা খাওয়ার বায়না ধরে। কিন্তু ওই দিন মন খা’রা’প করে শুয়ে পড়ে। মায়ের জিজ্ঞাসাবাদে শিশুটি মাকে বলে, ‘আমি আর মাদরাসায় যাইতাম না, হুজুর আমার লগে খা’রা’প কাম করছে’। মাদরাসার ভেতর এ রকম একটি ধ’র্ষ’ণ’চে’ষ্টার ঘটনা ঘটেছে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের একটি মাদরাসায়।

আজ সোমবার (২৯ মার্চ) মামলার পর অভি’যুক্ত মাদরাসা শিক্ষককে গ্রে’প্তা’র করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই ইউনিয়নের ফাতেমাতুজ জহুরা নুরাণী হাফিজিয়া মাদরাসায় সকালে পড়তে যায় সাত বছর বয়সের এক শিশু। গত বুধবার সকালে মাদরাসা ছুটির পর ওই শিশুকে শিক্ষক বদরুল আলম বাবুল (৫২) তাঁর কক্ষে ডেকে নেন চকলেট দেওয়ার কথা বলে। শিশুটি জানায়, এরপর ওই হুজুর তার পায়জামাটা ভালোভাবে পরা হয়নি বলে কাছে নিয়ে খু’লে ফেলে। একপর্যায়ে জো’র’পূ’র্বক ধ’র্ষ’ণের চেষ্টা করলে শিশুটি চিৎ’কা’র দেয়।

ওই সময় শিশুটির সঙ্গে আসা অন্য এক শিশু শব্দ শোনে ঘটনা প্রত্যক্ষ করে দৌড়ে চলে গেলে সে-ও (ঘটনার শিকার শিশুটি) হুজুরের কক্ষ ত্যা’গ করে। এ ঘটনার বিচার চাইতে গেলে গ্রাম্য সালিসকারীরা ধা’মা’চা’পা দিতে হুজুরের পক্ষ নেয়। পরে পুলিশ জানতে পেরে ওই হুজুরকে আ’ট’ক করে থানায় নিয়ে যায়। আজ সোমবার মামলার পর অ’ভি’যু’ক্ত হুজুর বাবুলকে গ্রে’প্তা’র দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়।

মা’ম’লা’র তদন্ত কর্মকর্তা মো. সাইদুর রহমান জানান, শিশুটির ২২ ধারায় জবানবন্দির জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন