‘সুবর্ণজয়ন্তীতে দেশকে অস্থি’তি’শীল করার অ’প’চেষ্টাকারীদের ছাড় দেওয়া হবে না’

প্রকাশিত: মার্চ ২৯, ২০২১ / ১১:৪৩অপরাহ্ণ
‘সুবর্ণজয়ন্তীতে দেশকে অস্থি’তি’শীল করার অ’প’চেষ্টাকারীদের ছাড় দেওয়া হবে না’

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর এ সময়ে দেশকে অস্থি’তিশীল করার অ’প’চে’ষ্টাকারীদের কোনোভাবে ছাড় দেওয়া হবে না বলে মন্তব্য করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

সোমবার (২৯ মার্চ) রাতে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগ আয়োজিত ‘৫০ বছরে বাংলাদেশ ও আজকের বাস্তবতা’ শীর্ষক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় রাজধানীর বেইলি রোডের সরকারি বাসভবন থেকে সংযুক্ত হয়ে প্রধান বক্তার বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাচ্ছে অ’প্র’তি’রোধ্য গতিতে। এমন একটি সময়েও বিএনপি-জামায়াত জোটের নেতৃত্বে একটি সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী দেশকে অস্থিতিশীল করার অ’প’চেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। তাদেরকে ন্যূনতম ছাড় দেওয়া হবে না। এ বাংলাদেশে নতুন করে কেউ ষ’ড়’য’ন্ত্র করলে তাদেরকে ক’ঠো’রভাবে দমন করা হবে। কোনোভাবেই বাংলাদেশের উন্নয়নকে বা’ধা’গ্র’স্ত হতে দেওয়া হবে না। প্রয়োজনবোধে ষ’ড়’য’ন্ত্র’কা’রীদের ক’ঠো’র বি’চারের মুখোমুখি করা হবে। বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অ’গ্র’গ’তিকে কোনোভাবে ধ্বং’স করতে দেওয়া হবে না।’

এক সময় তলাবিহীন ঝুড়ি হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ স্বাধীনতার ৫০ বছরে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে উল্লেখ করে শ ম রেজাউল করিম আরো বলেন, ‘১৯৭২ সালে আমাদের অর্থনীতির আকার ছিল ০.৫৮ বিলিয়ন ডলার যা আজ ৩৪৮ বিলিয়ন ডলার, মাথাপিছু আয় ছিল ১২৯ ডলার যা বর্তমানে ২০৬৪ ডলারে উন্নীত হয়েছে, দারিদ্র্যের হার ছিল ৮৮ শতাংশ যা আজ ২০ শতাংশে নেমেছে, গড় আয়ু ছিল ৪৭ বছর যা এখন ৭২.৬ বছর, শিক্ষার হার ছিল ২০.৯ শতাংশ যা আজ ৭২.৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, বিদ্যুতের উৎপাদন ছিল মাত্র ৪০০ মেগাওয়াট, আজ ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে, খাদ্য উৎপাদন ছিল ১ কোটি ৮ লাখ টন, আজ ৪ কোটি ৫৪ লাখ টন খাদ্য উৎপাদন হচ্ছে। ১৯৭২ সালে আমাদের বাজেট ছিল মাত্র ৭৮৬ কোটি টাকার, এখন ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট বাংলাদেশ প্রণয়ন করেছে। এ উন্নত-সমৃদ্ধ অবস্থার কারণেই উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘ চূড়ান্ত সুপারিশ করেছে। যে গতিতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে আমরা ২০৪১ সালের পূর্বেই সমৃদ্ধ-উন্নত বাংলাদেশে পৌঁছে যাব। যে স্বপ্ন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেখেছিলেন। যে স্বপ্ন দেখে বীর মুক্তিযো’দ্ধা’রা জীবন উৎসর্গ করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার দৃঢ় প্রত্যয়, সাহসিকতা, সততা এবং পরিশ্রমের কারণে এ সাফল্য অর্জিত হয়েছে।

‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আজ বিশ্ব নেতৃত্ব বাংলাদেশের প্রশংসা করে বলেছেন, যেভাবে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এটা বিশ্বের বিস্ময়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনসহ অনেক রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান বাংলাদেশের বিস্ময়কর উন্নয়নের প্রশংসা করেছেন। বিশ্ব নেতৃত্ব বলছে ঈর্ষা করার মতো উন্নয়ন বাংলাদেশ করতে পেরেছে। বাংলাদেশের এ অনন্য অর্জনের ম্যাজিশিয়ান শেখ হাসিনা’ যোগ করেন শ ম রেজাউল করিম।

অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান নাছিমের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান, অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম কবির, জার্মান আওয়ামী লীগের সভাপতি বশিরুল আলম চৌধুরী সাবু, সুউডেন আওয়ামী লীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির, সুইজারল্যান্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইসলাম, পর্তুগাল আওয়ামী লীগ সভাপতি জহিরুল আলম জসিম, নেদারল্যান্ডস আওয়ামী লীগ সভাপতি শাহাদাত হোসেন তপন, বেলজিয়াম আওয়ামী লীগ সভাপতি শহিদুল ইসলাম প্রমুখ অংশগ্রহণ করেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন