মিয়ানমারে একদিনেই আরো ১৭ জন নি’হ’ত

প্রকাশিত: মার্চ ১৫, ২০২১ / ১২:০১পূর্বাহ্ণ
মিয়ানমারে একদিনেই আরো ১৭ জন নি’হ’ত

মিয়ানমারে সামরিক জান্তা সরকার বি’রো’ধী চলমান বি’ক্ষো’ভে নি’রা’পত্তা বাহিনীর গু’লিতে নি’হ’তের সংখ্যা বে’ড়েই চলছে। রবিবার (১৪ মার্চ) একদিনেই আরো ১৭ জন আ’ন্দো’ল’ন’কারীর মৃ’ত্যু’র খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

সেখানে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের প্রধান শহর ইয়াংগুনের দ’রি’দ্র ও শিল্পাঞ্চলীয় এলাকায় অ’ন্তত ১৪ জন বি’ক্ষো’ভ’কা’রীকে গু’লি করে হ’ত্যা করেছে নি’রা’প’ত্তা বাহিনী। দেশের বাকি অংশে আরো তিন জনের মৃ’ত্যু’র সংবাদ পাওয়া গেছে।

দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন এমআরটিভি জানিয়েছে, এদিন নি’হ’ত হওয়াদের মধ্যে একজন পুলিশ সদস্যও আছেন। গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এই বি’ক্ষো’ভে এখন অবধি যে কয়েকটি দিন ভ’য়া’ব’হ র’ক্তা’ক্ত হয়েছে তার মধ্যে এটি একটি।

স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ইয়াংগুনের হ্লাইংথায়া জেলার দরিদ্র এলাকাগুলোতে বি’ক্ষো’ভ’কা’রীদের ওপর নি’রা’প’ত্তা বাহিনীর সদস্যরা সরাসরি গু’লি চালিয়েছে। পুরো দেশ থেকে আসা অভিবাসীদের আবাসস্থল হিসেবে পরিচিত অঞ্চলটি এদিন কা’লো ধোঁ’য়ায় ঢে’কে গেছে।

হ্লাইংথায়া হাসপাতালের এক কর্মকর্তা জানান, নি’হ’তে’র সংখ্যা আরো বা’ড়তে পারে। গুরু’ত্বর আ’হ’ত লোকজনকে এখনো হাসপাতালে নিয়ে আসা হচ্ছে।

এদিকে, জেলাটিতে সামরিক আইন জা’রি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এমআরটিভি। তবে জান্তা সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

এর আগে গত ১ ফেব্রুয়ারি এক বিতর্কিত সামরিক অভ্যু’ত্থা’নের মধ্য দিয়ে মিয়ানমারের ক্ষ’ম’তা দ’খল করে সামরিক বাহিনী। কারা’ব’ন্দি করা হয় দেশটির গণতান্ত্রিক নেত্রী অং সান সু চিসহ ক্ষ’মতাসীন দলের অধিকাংশ নেতাকে। দেশজুড়ে আগামী এক বছরের জন্য জা’রি করা হয়েছে জরুরি অবস্থা।

পরবর্তীতে জরুরি অবস্থা ভে’ঙে রাজপথে নেমে আসে মিয়ানমারের সর্বস্তরের জনতা। অ’বৈ’ধ’ভাবে ক্ষ’ম’তা দ’খল করা সামরিক সরকারের বি’রু’দ্ধে বৃহত্তর আ’ন্দো’লন গড়ে তোলেন। সেই আ’ন্দো’ল’নে এখন পর্যন্ত পুলিশের গু’লি’তে প্রায় ১০০ জন মানুষ নি’হ’ত হয়েছেন। আ’ট’ক করা হয়েছে ২ হাজারের বেশি মানুষকে। এ ছাড়া পুলিশি হেফাজতে সু চির দলের আরও দুই নেতার মৃ’ত্যু হয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন