জাতীয় পতাকা অব’মা’ন’নার অভি’যো’গে মা’ম’লা

প্রকাশিত: মার্চ ২, ২০২১ / ১২:০০পূর্বাহ্ণ
জাতীয় পতাকা অব’মা’ন’নার অভি’যো’গে মা’ম’লা

জাতীয় পতাকা অব’মা’ননার অভি’যো’গে বরগুনায় বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বি’রু’দ্ধে মামলা দায়ের করেছেন বরগুনা জেলা পরিষদের নির্বাচিত সদস্য ও বরগুনা নারী-শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালের সহকারী প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাড. মুজাহিদ জাকির।

বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাহিদ হোসেনের আদালতে আজ সোমবার মা’ম’লাটি দায়ের করা হয়েছে। আগামী ৪ মার্চ এ মা’ম’লার আদেশের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছে।

জাতীয় পতাকার ম’র্যা’দা সমুন্নত রাখার লক্ষে স্বাধীনতার মাসে বরগুনার এ মা’ম’লা’টি বরগুনাসহ সারা দেশে সচেতনতা বৃ’দ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বাদী মুজাহিদুল ইসলাম গত ২১ ফেব্রুয়ারি তিনি বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন স্বজনকে দেখে ফেরার পথে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর বরগুনা জেলা কার্যালয়ের উত্তোলিত জাতীয় পতাকা বিধিসম্মতভাবে হয়নি দেখতে পান।

একইভাবে বরগুনার স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, জেলা সাব-রেজিস্টার কার্যালয়সহ বেশ কয়েকটি সরকারি কার্যালয়ে নিয়ম মেনে পতাকা উত্তোলন করা হয়নি বলে তাঁর দা’বি। এছাড়াও বাড়িতে যাবার পথে বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান কুয়েত প্রবাসী হাসপাতাল ও তিনি ওইসব কার্যালয়ের উত্তোলিত পতাকার ছবি মোবাইল ফোনে ধারণ করে মা’ম’লা’র সঙ্গে কপি সংযুক্ত করেছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রাক্তন ছাত্র অ্যাড. মুজাহিদ জাকির আইন পেশার পাশাপাশি বরগুনা জেলা পরিষদের একজন নির্বাচিত সদস্য। তিনি জানান, আ’সা’মি’রা জাতীয় পতাকা আইন ১৯৭২ এর ৩ এবং ২০১০ এর ২০ নং ধারা লং’ঘ’ন করেছেন।

স্বাধীন বাংলাদেশের ম’র্যাদা সমুন্নত রাখতে জাতীয় পতাকা উ’ত্তো’ল’নে গা’ফে’লতি শা’স্তি’যো’গ্য অ’প’রাধ। আমি চাই এ মা’ম’লায় অ’ভি’যু’ক্তদের শা’স্তি হোক এবং সচেতনতা ফিরুক সবার মাঝে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন