৫৩৯ বছরের প্রাচীন মসজিদের সম্পদ দ’খ’লে’র অভি’যোগ

প্রকাশিত: ফেব্রু ২৮, ২০২১ / ১২:০৩পূর্বাহ্ণ
৫৩৯ বছরের প্রাচীন মসজিদের সম্পদ দ’খ’লে’র অভি’যোগ

৫৩৯ বছরের প্রাচীন একটি মসজিদের ওয়াক্ফ সম্পত্তি দ’খ’লে’র অ’ভি’যো’গ এনে সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভীর বি’রু’দ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ওই মসজিদ কমিটির লোকজন।

শনিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় নারায়ণগঞ্জ রাইফেলস ক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ। উপস্থিত ছিলেন মসজিদের মোতয়াল্লি সাখাওয়াত উদ্দিন আহমেদসহ কমিটির সবাই।

তাদের অ’ভি’যো’গ, মীর শরিয়ত উল্লাহ (মণ্ডলপাড়া জামে মসজিদ) ওয়াক্ফ এস্টেট নামের ওই ওয়াক্ফকৃত সম্পত্তিটি জো’র’পূ’র্বক দ’খ’ল করে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করতে চাইছেন মেয়র আইভী। এই ওয়াক্ফ এস্টেটের দান করা ৪৩ শতাংশ জমির উপর নারায়ণগঞ্জ জেলা মডেল মসজিদের নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে অ’ভি’যো’গ করা হয়- জেলা মডেল মসজিদের জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে জায়গা দিয়েছে মীর শরিয়ত উল্লাহ ওয়াক্ফ এস্টেট এবং কাজ করছে গণপূর্ত বিভাগ। অথচ সিটি করপোরেশনের কোনো সম্পৃক্ততা না থাকলেও গত ১২ জানুয়ারি মেয়র আইভী ওই মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তরের নামফলক স্থাপন করেছেন সেখানে।

এ ব্যাপারে সিটি মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী গণমাধ্যমকে জানান, শুধু নারায়ণগঞ্জেই না,সারা দেশেই মডেল মসজিদ স্থাপিত হবে। নারায়ণগঞ্জ মডেল মসজিদ নির্মাণের জন্য যখন জায়গা চাওয়া হলো আমি এ জিমখানা মসজিদটির কথা বলি। কেননা পুরো জেলার মধ্যে সবচেয়ে পুরাতন মসজিদ হলো এটি। মসজিদ সম্প্রসারণের জন্য আমি সিটি করপোরেশনের যে সামনের ভবনটি আছে সেটিও ছেড়ে দিয়েছি।

যদিও মেয়র আইভীর এমন বক্তব্যকে মি’থ্যা’চা’র বলে দা’বি করেছেন মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন।

তিনি বলেন, জেলা মডেল মসজিদের জন্য আমাদের ওয়াকফের ৮৩ শতাংশের মধ্যে ৪৩ শতাংশ জমি দিয়েছি। সেখানে তিনি মসজিদ সম্প্রসারণ কোথায় পেলেন তা আমার বোধ’গ’ম্য নয়। মূলত তার দুরভিসন্ধি রয়েছে ওয়াকফের ৪৩ শতাংশ জমির উপর মডেল মসজিদ নির্মাণের পর বাকি জমিটি তিনি দখল করে সেখানে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করবেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন