হাত-পা বেঁধে ইউপি সদস্যের নি’র্যা’তন, ভিডিও ভাইরাল

প্রকাশিত: ফেব্রু ২৭, ২০২১ / ১১:৫৯অপরাহ্ণ
হাত-পা বেঁধে ইউপি সদস্যের নি’র্যা’তন, ভিডিও ভাইরাল

পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলার চরনী পত্তাশী গ্রামের আশিক (২৫) নামে এক যুবককে হাত-পা বেঁ’ধে বি’ব’স্ত্র করে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। আর এ ঘটনাটি ঘটেছে ইন্দুরকানীর পার্শ্ববর্তী উপজেলা বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের চিংড়াখালী ইউনিয়নে। নি’র্যা’তি’ত যুবক ইন্দুরকানী উপজেলার চরনী পত্তাশী গ্রামের কবির জোমাদ্দারের ছেলে ও ১৭নং পত্তাশী বোর্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি।

এক নারী এ ঘটনার ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়ার পর গতকাল শুক্রবার থেকে এটি ভাইরাল হয়ে পড়ে ফেসবুকে। ছবি ও ভিডিওর দৃশ্যগুলো দ্রুত ভাইরাল হলে নড়েচড়ে বসে পুলিশ। ঘটনার পর পুলিশের একটি টিম সোহেল খানকে আট’কে’র জন্য তার বাড়িতে অ’ভি’যা’ন চালায়। কিন্তু তাকে আ’ট’ক করা সম্ভব হয়নি। পরে তার বাড়িতে ত’ল্লা’শি চালিয়ে বেশ কিছু দেশীয় অ’স্ত্র উ’দ্ধা’র করে পুলিশ।

এ ঘটনায় ইউপি সদস্য সোহেল খানসহ চারজনের নামে গত বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে মোরেলগঞ্জ থানায় মা’ম’লা দায়ের হয়েছে। সোহেল খান মোড়েলগঞ্জ উপজেলার চিংড়াখালী ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার ও বড় জামুয়া গ্রামের মৃ’ত খলিল খানের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পার্শ্ববর্তী ইন্দুরকানী উপজেলার চরনী পত্তাশী গ্রামের কবির আকনের ছেলে আবদুস সবুর আকনের একটি মোবাইল ফোন মঙ্গলবার চু’রি করে নেয় মেম্বার সোহেল খানের ছোট ভাই রুবেল খান। চু’রি যাওয়া মোবাইল ফোনটি উ’দ্ধা’রের জন্য বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মেম্বার সোহেলের বাড়িতে যান মোবাইল মালিক আবদুস সবুরের বন্ধু আশিক জোমাদ্দার। সোহেলের কাছে মোবাইলটি উ’দ্ধা’রের দা’বি করলে আাশিক ও সোহেলের মধ্যে কথা কা’টা’কা’টি হয়।

এক পর্যায়ে মেম্বার সোহেল খানের নির্দেশে তার ক্যাডার বাহিনী আশিককে আ’ট’ক করে তার হাত-পা বেঁ’ধে নি’র্যা’তন করে। এতে তার শরীরের বি’ভিন্ন স্থা’ন বে’ধ’ড়’ক পি’টু’নি’তে র’ক্তা’ক্ত পরে। পরে গু’রু’তর আ’হ’ত আশিককে উ’দ্ধা’র করে স্বজনরা মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। এ ঘটনা শোনার পর আশিকের নিজ এলাকা পত্তাশী ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ ক্ষো’ভে ফে’টে পড়েন।

সোহেলের ব্যাপারে খোঁজ নিতে গেলে মোড়েলগঞ্জ থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, চিংড়াখালী ইউনিয়ন যুবলীগের বহি’ষ্কৃ’ত যুবলীগ নেতা ইউপি সদস্য সোহেল খানের বি’রু’দ্ধে কক্সবাজারের উখিয়া থানায় একটি মা’দ’ক মা’মলা ও মোরেলগঞ্জ থানায় হ’ত্যা ও মা’দ’কসহ বিভিন্ন অ’ভি’যো’গে তার নামে ৭টি মা’ম’লা রয়েছে এবং বিভিন্ন অ’প’রা’ধে বহুবার জেলও খেটেছেন তিনি।

তবে ইন্দুরকানী উপজেলার আশিক জোমাদ্দার (২৫) নামে এক যুবককে বি’ব’স্ত্র করে হাত-পা বেঁ’ধে পি’টি’য়ে আবারও আলোচনায় উঠে আসে চিংড়াখালী ইউনিয়নের ত্রাস সোহেল খানের নাম। এ ঘটনার পর তাকে ধরতে পুলিশি তৎপরতা শুরু হলে গা ঢাকা দেন তিনি।

নি’র্যা’ত’নে’র শি’কা’র আশিকের পাড়া প্রতিবেশিরা জানান, সোহেল মেম্বারের নি’র্যা’ত’নের হাত থেকে র’ক্ষা পেতে অনেক অ’নুনয় বি’নয় করে আশিক। কিন্তু তাতেও র’ক্ষা পা’য়নি সে।

এ বিষয়ে মোড়েলগঞ্জ থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, ইউপি সদস্য সোহেল খানের এলাকায় নানা অ’প’ক’র্ম রয়েছে। ওই যুবককে হাত-পা বেঁ’ধে নি’র্যা’ত’নের ঘটনায় মা’ম’লা হয়েছে। সোহেলকে আ’ট’কের জন্য পুলিশের অ’ভি’যা’ন অব্যাহত রয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন