আওয়ামী লীগ নেতার ভাই ‘গ্রাম পুলিশকে পেটালেন’

প্রকাশিত: ফেব্রু ২২, ২০২১ / ০৬:৫৬অপরাহ্ণ
আওয়ামী লীগ নেতার ভাই ‘গ্রাম পুলিশকে পেটালেন’

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে পলাতক ওয়ারেন্টভুক্ত আ’সামি নুরুজ্জামান খানের তথ্য পুলিশকে দেয়ার সন্দেহে গ্রাম পুলিশকে (দফাদার) পে’টালেন আওয়ামী লীগ নেতা কাজী মিজানুর রহমান লাভলুর চাচাতো ভাই। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার উত্তর রামপুর গ্রামে কাজী বাড়িতে।

আহত গ্রাম পুলিশ (দফাদার) মো. শফিকুল ইসলাম সোহাগ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গ্রে’ফতারকৃত নুরুজ্জামান একই এলাকার সোহরাব খানের ছেলে।

আহত মো.শফিকুল ইসলাম সোহাগ অভিযোগ করেন, ওই দিন মাধবখালী ইউনিয়নের উত্তর রামপুর গ্রামে কাজী বাড়িতে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে দীর্ঘ দিনের প’লাতক হ’ত্যা চেষ্টা মা’মলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসা’মি নুরুজ্জামান অবস্থান করছিলেন।

খবর পেয়ে মির্জাগঞ্জ থানার এসআই আমিনুল ইসলাম তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে আসামি নুরুজ্জামানকে গ্রে’ফতার করে থানায় নিয়ে আসে। এর জের ধরে মাধবখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি কাজী মিজানুর রহমান লাভলুর চাচাতো ভাই কাজী নজরুল ইসলাম ও কাজী কামরুল ইসলাম পুলিশকে তথ্য দেয়ার সন্দেহে আমাকে পি’টিয়ে আহত করে।

এ বিষয়ে মাধবখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী মিজানুর রহমান লাভলু মোবাইল ফোনে জানান, ওয়ারেন্টভুক্ত আ’সামি নুরুজ্জামানকে পুলিশকে ধরিয়ে দেয়া নিয়ে গ্রাম পুলিশের দফাদার মো. শফিকুল ইসলাম সোহাগ এবং আমার চাচাতো ভাইদের সঙ্গে সামান্য কথা কাটা’কাটি হয়েছে। তাকে কোনো মার’ধর করা হয়নি।

মির্জাগঞ্জ থানার ওসি মো. মহিববুল্লাহ জানান, ঘটনাটি লোকমুখে শুনেছি। তবে এ ব্যাপারে কোনো লিখিত অভিযোগ পায়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন