দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ বাড়ল ৫ বছর

আইন-শৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) সংশোধন আইনের মেয়াদ আরও পাঁচ বছর বাড়ানো হয়েছে। এই সংশোধনী এনে বিদ্যমান আইনের খসড়াটি আজ সোমবার মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

তেজগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার এই নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। পরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে সভার সিদ্ধান্ত জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

কেন এই আইনের মেয়াদ বাড়ানোর প্রয়োজন হলো- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এখনো এর কার্যকারিতা আছে। অনেক স্পর্শকাতর মামলা আছে, যা দ্রুত নিষ্পত্তি হওয়া প্রয়োজন।

আইনের খসড়ায় বিষয়বস্তুতে কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। এই আইনটি হয়েছিল ২০০২ সালে। সেটির মেয়াদ ১৭ বছর শেষ হয়েছে গত এপ্রিলে। এখন এর মেয়াদ আরও পাঁচ বছর বাড়িয়ে ২০২৪ সাল পর্যন্ত এর কার্যকারিতা বৃদ্ধি করা হলো।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘ কাস্টমস আইন, ২০১৯ এর খসড়াও অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই আইনের খসড়াটি ২০১৮ সালে মন্ত্রিসভায় অনুমোদনের পর তা জাতীয় সংসদেও পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সংসদের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় সেটি আর পাস হয়নি। তাই এখন আনুষ্ঠানিকতা হিসেবে আবারও মন্ত্রিসভার অনুমোদনে সংসদে পাঠানো হচ্ছে।

এ ছাড়া, বৈঠকে ‘আন্তর্জাতিক নৌ দিবস’কে ‘বিশ্ব নৌ দিবস’ হিসেবে অভিহিত করা এবং দিবসটিকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস উদ্‌যাপন বা পালন সংক্রান্ত পরিপত্রের ‘গ’ শ্রেণির পরিবর্তে ‘খ’ শ্রেণিতে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাবও অনুমোদন পেয়েছে।

বৈঠকে প্রয়াত গুণী শিল্পী খালিদ হোসেন ও সুবীর নন্দীর মৃত্যুতে শোকপ্রস্তাব গ্রহণ করেছে মন্ত্রিসভা। এ ছাড়া বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ড কাপে লাওসের সঙ্গে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় নারী ফুটবল দলকে এবং আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় জাতীয় ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়েছে মন্ত্রিসভা।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত