হায়েজের কারণে বাদপড়া রোজা কীভাবে রাখব?

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় এনটিভির জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মোহাম্মদ মতিউল ইসলাম।

আপনার জিজ্ঞাসার ৫৮৪তম পর্বে রমজান মাসে হায়েজ চলা অবস্থায় যে রোজাগুলো বাদ যায়, সেগুলো পরে পূরণ করতে হবে কি না, সে বিষয়ে ফেনী থেকে টেলিফোনের মাধ্যমে জানতে চেয়েছেন কেয়া। অনুলিখন করেছেন জান্নাত আরা পাপিয়া।

প্রশ্ন : রমজান মাসে হায়েজ চলা অবস্থায় যে রোজাগুলো বাদ যায়, সেগুলো কি পরে পূরণ করতে হবে?

উত্তর : রমজানে যে রোজা বাদ পড়বে, সে রোজাগুলো পরে নিজে রেখে দিতে হবে। হাদিসে এসেছে, আয়েশা (রা.) বলেছেন যে, ‘রমজান মাসে যে রোজাগুলো কাজা হতো, আমি সে রোজাগুলো শাবান মাসে আদায় করে নিতাম।’

মূল কথা হলো, আরেকটি রমজান মাস আসার আগেই নিজের রোজাগুলো নিজে রেখে দিতে হবে। ধরুন, ছয়টি রোজা হায়েজের কারণে কেউ ভেঙেছে। এখন দুইটা দুইটা করে বা একাধারে ছয়টি রোজা আদায় করতে পারবে পরবর্তী রমজান মাস আসার আগ পর্যন্ত।

আর হায়েজ অবস্থায় নামাজ বাদ গেলে পূরণ করতে হবে না। এটা সহিহ হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। কিন্তু রোজা পরবর্তী সময়ে আদায় করে নিতে হবে।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত