কেমন হবে রোজার ডায়েট

একজন রোজাদার ইফতার ও সেহরিতে কী খাবেন তা নির্ভর করবে তার স্বাস্থ্যের অবস্থা ও বয়সের ওপর। সেহরি ও ইফতারে সহজে ও তাড়াতাড়ি হজম হয় এমন খাদ্য গ্রহণ করতে হবে। সুষম খাদ্যাভাসের মাধ্যমে পবিত্র রমজান মাসের সিয়াম সাধনা আমাদের জন্য অত্যন্ত স্বাস্থ্যবান্ধব সিয়াম পালন।

সুস্থ স্বাভাবিক মানুষ রোজায় কী খাবেন:

– রোজায় লেবুর শরবত, ডাবের পানি, খেজুর, চিড়া, দই, লাচ্ছি, হালিম ইত্যাদি খেতে পারবেন। তবে তেলেভাজা খাবার একটু কম পরিমাণে খেলে ভাল। রোজা ভাঙার পরপরই তেলেভাজা খাবার না খেয়ে নামাজের পর খেতে পারেন। তেলছাড়া খাবার দিয়ে রোজা ভাঙুন।

– বাসার তৈরি খাবার খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।

– খাবারে বেকিং পাউডার বা খাবার সোডা ব্যবহার না করলে ভাল হয়।

– যেহেতু এবারের রোজায় গরম রয়েছে, তাই ইফতারির পর থেকে সন্ধ্যা রাত পর্যন্ত প্রচুর পানি খেতে হবে। রোজা রেখে যারা কাজ করতে গিয়ে ঘেমে যাচ্ছেন তারা ইফতারিতে ডাবের পানি বা স্যালাইন খেতে পারেন। সেই সাথে প্রচুর ফলমূল খেতে পারেন।

যারা ওজন কমাতে চান তাদের জন্য রোজার ডায়েট:

যারা ওজন কমাতে ডায়েট করছেন তারা খুব চিন্তায় পড়ে যায় রোজায় কিভাবে ডায়েট করবেন। রোজায় কিন্তু আপনার ওজন কমানোর মোক্ষম সুযোগ। কিন্তু অনেকেই সঠিক ডায়েট ফলো না করায় ওজন হয়তো বেড়ে যায় বা খাবার দাবার একদম কমিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

– যদি ডায়েটিশিয়ান এর কাছ থেকে যদি রোজার ডায়েট নিয়ে না থাকেন তাহলে রোজায় ইফতারে চিড়া+টক দই বা মুড়ি/চিড়া+ছোলা সিদ্ধ, সালাদ, মিষ্টি ছাড়া ফল বা ফ্রুট সালাদ, তরমুজের জুস, একটা সিদ্ধ ডিম ইত্যাদি রাখতে পারেন।

– সন্ধ্যারাতে ওটস্+দুধ বা চিকেন সুপ বা রুটি+সবজি/মাংস অথবা এক গ্লাস দুধ আর দুটো খেজুর খেতে পারেন।

– সেহেরিতে ভাত+মাছ/মাংস+সবজি ইত্যাদি রাখা যেতে পারে।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত