‘ইয়েতি’র বিশালাকার পায়ের ছাপ পাওয়া গেলনেপাল-চীন সীমান্তে

কখনও গল্পের বইয়ের পাতায় আবার কখনও সিনেমার পর্দায় আমরা বার বার তার অস্তিত্ব টের পেয়েছি। কিন্তু বাস্তবে আদৌ তার অস্তিত্ব আছে কিনা সে নিয়ে নানা জনের নানা মত। কখনও সে তুষারমানব কখনও বা ইয়েতি। কথিত আছে, হিমালয়ের তুষাররাজ্যে ঘুরে বেড়ায় বিশাল এক দৈত্যাকৃতি প্রাণী, শিল্পীর কল্পনা অনুযায়ী যা একটি ভাল্লুক।

ইয়েতি নিয়ে কখনও ইয়েতি অভিযান আবার কখনও রোমাঞ্চকর গল্প। গল্প বা সিনেমায় বার বার এই ইয়েতি বিশালাকৃতি তুষারমানবের কথা উঠে এলেও এই প্রাণীটির অস্তিত্বের সঠিক প্রমান আজও কেউ দিতে পারেনি।

তবে সম্প্রতি ইয়েতির অস্তিত্ব টের পেয়েছে ভারতীয় সেনা। নেপাল-চীন সীমান্তের বেস ক্যাম্পে তার পায়ের ছাপ দেখতে পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি করেছে তারা। ট্যুইটারে বিশালাকার পায়ের ছাপের সেই ছবিও পোস্ট করেছে ভারতীয় সেনার জনসংযোগ বিভাগ। সুবিশাল সেই পায়ের ছাপের আয়তন ৩২x১৫ ইঞ্চি। এই ছবি দেওয়া মাত্রই সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় পড়ে যায়।

ভারতীয় সেনারা জানিয়েছেন, ৯-ই এপ্রিল নেপালের মাকালু বেস ক্যাম্পের কাছাকাছি ইয়েতির পায়ের ছাপ তারা প্রত্যক্ষ করেছেন। এ প্রসঙ্গে অনেকেই দাবি করেছেন অতীতে মাকালু-বারুন ন্যাশনাল পার্কে ইয়েতির দেখা পাওয়া গেছে। ইয়েতির অস্তিত্ব নিয়ে এর আগেও বহু আলোচনা হয়েছে।

যেমন, নেপালের বাসিন্দাদের মতে হিমালয়, সাইবেরিয়া, মধ্য ও পূর্ব এশিয়ায় ইয়েতি রয়েছে। তবে বিজ্ঞানীদের মতে পুরোটাই মানুষের চোখের ভুল। ইয়েতি নামক বিশালাকার তুষারমানব থাকুক আর নাই থাকুক তার অস্তিত্ব নিয়ে বার বার আলোচনা হয়েছে। আর সম্প্রতি ‘ইয়েতির পায়ের ছাপ দেওয়া’ ভারতীয় সেনার টুইটে রীতিমত আলোচনা আরও বেড়ে গেছে তা বলাই বাহুল্য।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত