মাদরাসা ছাত্রী নুসরাতের ঘটনা তদন্তে গাফিলতি হলে হাইকোর্ট হস্তক্ষেপ করবে: ব্যারিস্টার সুমন

ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন জানিয়েছেন, মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির ঘটনা তদন্তে কোনো প্রকার গাফিলতি হলে হাইকোর্ট হস্তক্ষেপ করবে। বুধবার রাতে নুসরাতের মৃত্যুর পর বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি হাইকোর্টের নজরে আনেন তিনি।

ব্যারিস্টার সুমন হাইকোর্টের বেঞ্জ থেকে বেরিয়ে ফেসবুক লাইভে এসে বলেন, ‘নুসরাত জাহান রাফির মৃত্যুর খবর শোনার পর গতকাল কাল রাতে শান্তি মত ঘুমাতে পারি নি। আমার মনে হয়েছে সে আগুনে পুড়ে যত কষ্ট পেয়েছে, সারা দেশের মানুষ বিভিন্ন ভাবে কষ্ট পাচেছ।

যে কারণে আজ সকালে পত্রিকা সংগ্রহ করে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের নজরে নিয়ে আসি। আদালতে বলার চেষ্টা করেছি, একটি বিচার বিভাগীয় তদন্ত করার জন্য। বিভিন্ন দলীয় নেতৃবৃন্দ জড়িত, একজন মাদ্রাসার অধ্যক্ষ জড়িত, এই জন্য শুধু একজন এসআইকে দিয়ে তদন্ত না করিয়ে পুরোপুরি একটি বিচার বিভাগীয় তদন্ত করার জন্য।’

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, মাননীয় আদালত আমাদের বলেছেন, আমরা এই পর্যায়ে যেহেতু স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী তদন্ত করছেন, আপনারা একটু একটু ধৈর্য ধরেন। যেকোনে পর্যায়ে এই তদন্তে আপনারা যদি গাফিলতি পান আপনার আসবেন । আপনার আসলে এখানে আমরা হস্তক্ষেপ করবো। সুতারাং সরকারের উপর সল্পসময়ে সুষ্ঠু তদন্তের জন্য একটা পেশার থাকবে।

তিনি বলেন, আমি বলতে চাই, একটি কোনো সাধারণ আগুন লাগার ঘটনা নয়, এই নুসরাত জাহান রাফি যদি বিচারের বাইরে চলে যায়, তাহলে বাংলাদেশে ন্যায় বিচার বলে কিছু থাকবে না। ব্যারিস্টার সুমন বলেন, আমি আমার বিবেকের তাড়নায় যতটুকু সম্ভব করেছি। চেষ্টা করেছি পেশার তৈরি করার। কোনো ভাবে যেন অন্যান্য যেকোনো তদন্তের মত না হয়, যেন আরো বেশি শক্ত তদন্ত হয়।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত