সুদানে বিক্ষোভ অব্যাহত, নিহত ১৩

সুদানে সেনাবাহিনীর কারফিউ ভঙ্গ করে প্রতিবাদ বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে বিক্ষোভকারীরা। রাজধানী খার্তুমের বিভিন্ন সড়কে বিক্ষোভ কর্মসূচি করছে তারা।

বৃহস্পতিবার খার্তুমে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বেশ কয়েকটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ১৩ জন নিহত ও বেশ কয়েকজন মারাত্মক আহত হয়েছেন। শুক্রবার এক বিবৃতিতে দেশটির চিকিৎসকদের কেন্দ্রীয় কমিটি এ তথ্য জানান।

গেল এক সপ্তাহে বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত ৩৫ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন তারা।

দীর্ঘ কয়েক মাসব্যাপী সরকার বিরোধী বিক্ষোভের পর বৃহস্পতিবার সেনাবাহিনী দেশটির দীর্ঘ কালীন প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বাশারকে সেনা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত করে।

এই ঘটনার কিছু পরেই দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী আওয়াদ ইবনে ওউফ টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক ভাষণে সেনা শাসন জারির ঘোষণা দেন। এছাড়াও তিনি দেশের পরিস্থিতি শান্ত ও নিয়ন্ত্রণে রাখতে দেশজুড়ে এক মাসের কারফিউ ও তিন মাসের জরুরি অবস্থা জারি করেন।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জাতিসংঘ ও আফ্রিকা ইউনিয়ন উভয় পক্ষকেই শান্ত হওয়ার আহবান জানিয়েছে। সুদান সেনাবাহিনী দেশটির বর্তমান সংসদ ভেঙ্গে দিয়েছে ও দেশ পরিচালনার জন্য একটি সেনা কমিটি গঠন করেছে। এছাড়াও তার ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বাশারকে গৃহবন্দী করে রেখেছে ও তার দলের বেশ কিছু নেতাকে গ্রেফতার করেছে।

প্রসঙ্গত, ওমর আল-বাশার দীর্ঘ ৩ দশক ধরে সুদানের ক্ষমতায় ছিলেন। ১৯৮৯ সালে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী সাদিক আল-মাহদি’কে সেনা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত করে দেশটির ক্ষমতায় আসেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত