সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন জেরিন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন জাবির ইংরেজি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (৪৬তম ব্যাচ) মেধাবী শিক্ষার্থী ফারিহা নুসরাত জেরিন। গতকাল ৮ এপ্রিল (সোমবার) রাত ২টার দিকে রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ফারিহা নুসরাত জেরিনের গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়। পরিবারের সাথে ঢাকার সেন্ট্রাল রোডে থাকতেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের জাহানারা ইমাম হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন তিনি।

জেরিনের পরিবার ও সহপাঠী সূত্রে জানা যায়, গত চার বছর ধরে এলার্জিজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন জেরিন। এজন্য এলার্জির নিয়মিত চিকিৎসা করাচ্ছিলেন তিনি। বেশ কিছুদিন আগে তাঁর গায়ে গোঁটা উঠতে শুরু করলে তিনি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী স্টেরয়েড (চর্ম রোগের ওষুধ) জাতীয় ওষুধ গ্রহণ করেন। গত রবিবার তিনি বাসায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে সেদিন বিকেলে তাঁকে সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সেন্ট্রাল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আতিয়া বেগম বলেন, চিকেন পক্স ও পেটব্যাথা দিয়ে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। ভর্তির হওয়ার পরে হাসপাতালের কেবিনে দু-এক ঘণ্টা তাকে পর্যবেক্ষণ করা হয়। এ সময় তার নাক, মুখ, মলদ্বার, ‘পার ভ্যজাইনাল’ দিয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছিলো। তারপর তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) তে নেওয়া হয়। আইসিইউতে চারজন কনসালট্যান্ট তাকে পর্যবেক্ষণ করেন। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় রাতে তাঁর মৃত্যু হয়।

মৃত্যুর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, সে যখন ভর্তি হয়েছে তখন তার অবস্থা গুরুতর ছিল। চিকেন পক্স জটিল আকার ধারণ করেছিলো। হঠাৎ করে ফেইলার হয়েছে। অনেকগুলো সমস্যা একসাথে ছিল।

আজ মঙ্গলবার বাদ জোহর জানাজার পর আজিমপুর কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন তিনি। তার মৃত্যুতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। গভীর শোক প্রকাশ করে জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম জেরিনের পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনদের প্রতি সমবেদনাজ্ঞাপন ও বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত