হিজাব পরিধান করায় মার্কিন মুসলিম নারী সেনাকে হেনস্থা

যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো রাজ্যের কলোরাডো স্প্রিং শহরের ফোর্ট কার্সনে কর্মরত দেশটির সেনাবাহিনীর একজন মুসলিম নারী সৈনিককে তার উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা হিজাব পরিধান করায় হেনস্থা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বার্তা সংস্থা আর্মি টাইমস এমন খবর দিয়েছে।

সার্জেন্ট চেসিলিয়া ভাল্ডোভিনসের নিযুক্ত আইনজীবী আর্মি টাইমসকে বলেন, তার মক্কেল যখন কর্নেল ডেভিড জিনের সঙ্গে দেখা করে সেনাবাহিনীতে নারী পুরুষ সমতার কথা আলোচনা করছিলেন ঠিক তখন সেখানে উপস্থিত কমান্ডার সার্জেন্ট মাজ ক্রিস্টিন মোন্টোয়া অভিযোগ করে বলেন যে, সার্জেন্ট চেসিলিয়া ভাল্ডোভিনস এমনভাবে হিজাব পরিধান করেন যার ফলে তার চুল ঢাকা থাকে।

কর্নেল ডেভিড জিন বলেন, তিনি সেনা আইনের মধ্যে এমন কিছু পান নি যা সম্পর্কে সার্জেন্ট মাজ ক্রিস্টিন মোন্টোয়া অভিযোগ করেছিলেন।

তিনি বলেন, ‘একজন কমান্ডার সার্জেন্ট চেসিলিয়া ভাল্ডোভিনসের এর বিরুদ্ধে কিছু অভিযোগ দায়ের করেছেন।’

‘তদন্তের ফলাফলে উঠে এসেছে যে, সার্জেন্ট চেসিলিয়া ভাল্ডোভিনস তার হিজাব এমনভাবে পরিধান করেছেন যাতে সেনা আইনের বিরোধিতা করা হয় এমন কিছু ঘটে নি।’

তথাপি, সার্জেন্ট চেসিলিয়া ভাল্ডোভিনস যিনি একজন মুসলিম, তিনি বলেন, তিনি সবসময় হিজাবের ভেতর তার চুল ঢেকে রাখার চেষ্টা করেন। তিনি আর্মি টাইমসকে বলেন, তার বিশ্বাস তার উপরস্থ কর্মকর্তা শুধুমাত্র মুসলিম হওয়ার কারণে তাকে হেনস্থা করেছেন।

‘Military Religious Freedom Foundation’ নামের সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা মিকি ওয়েনস্টেইন যিনি ভাল্ডোভিনসের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি আর্মি টাইমসকে বলেন, ‘এই বৈষম্য যুক্তরাষ্ট্রের কিছু মানুষের মনে মুসলিম বিরোধিতার অন্যতম উদাহরণ।’

আর্মি টাইমস জানিয়েছেন যে, সেনা বাহিনীতে যোগ দেয়ার পূর্বে ভাল্ডোভিনসকে তার নিজের ধর্ম বিশ্বাস অনুযায়ী পোশাক পরিধানের অনুমতি দেয়া হয়েছে। এধরনের অনুমতিতে সাধারণত হিজাব অন্তর্ভুক্ত থাকে যা ২০১৭ সালে দেয়া হয়েছিল।

কর্নেল ডেভিড জিন বলেন, তিনি সেনাদের ধর্মীয় স্বাধীনতায় বিশ্বাস করেন।

তিনি আরো বলেন, ‘সেনাদের প্রতি অসম্মান, তাদের ধর্মীয় বিশ্বাস, ঐতিহ্য এবং ধর্ম পালনের প্রতি অসম্মান হয় এমন অভিযোগ আমি সবসময় গুরুত্বের সাথে নিয়ে থাকি।’

তথাপি, ভাল্ডোভিনসের বলেন, তার প্রতি ক্রিস্টিন মোন্টোয়া যে বৈষম্য মূলক আচরণ করেছে সে সম্পর্কে কর্নেল ডেভিড জিন কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত