বেতন পায় না বেগম জিয়ার গৃহপরিচারিকা ফাতেমা, কবে মুক্তি মিলবে জানতে চায় তার পরিবার

১৩ মাস আগে খালেদা জিয়াকে যখন জেলে নেয়া হয়, তখন সঙ্গী হন তার গৃহপরিচারিকা ফাতেমা। ফাতেমার বাবা রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন ধরে বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে তার পরিবার। দীর্ঘ সময়ে একবারও ২সন্তানের সঙ্গে দেখা হয়নি ফাতেমার। বারবার চেষ্টা করেও খালেদা জিয়ার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না তার স্বজনরা। একাত্তর টিভি।

১০ বছর আগে স্বামী মারা যাওয়ার পর এলাকার এক পরিচিতের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার বাসায় কাজ পান ফাতেমা। বেতন তখন ২ হাজার ছিলো। ১০ বছরে বেতন বেড়ে হয়েছে ৫ হাজার। শর্ত ২৪ ঘন্টার সার্বক্ষণিক ডিউটি এবং আড়াই থেকে তিন বছর পরপর ছুটি। আগে সন্তানদের সঙ্গে ফোনে কথা বলার সুযোগ হতো তার। কিন্তু খালেদা জিয়া জেলে যাওয়ার পর কেবল ২বার বাবা ছাড়া আর কারো সঙ্গে দেখা হয়নি। ১৩ মাসে ফাতেমার পরিবারের দেনা হয়েছে প্রায় এক লাখ টাকা।

ফাতেমার বেতনের টাকা যায় মানি অর্ডারে ভোলার গ্রামের বাড়ির ঠিকানায়। খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমান বা তার পরিবারের কেউ ফাতেমার পরিবারের খবর নেয়নি। টাকার অভাবে ফাতেমার দুই ছেলে এখন স্কুল ছেড়ে মাদ্রাসায় যাওয়ার অবস্থায়।

ফাতেমার বাবা বলেন, সংসারের অভাবের কারণেই গৃহকর্মীর কাজ করতে হচ্ছে। সন্তানদের ডাক্তার বানানোর স্বপ্ন নিয়ে ভোলা থেকে ঢাকায় পাড়ি জমিয়েছিলো ফাতেমা। তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়া জীবনেও কিছু দেবে না, এমনকি কিছু দরকার কিনা জিজ্ঞেসও করবে না। অন্য কেউ দিলে হয়তো পাবে। খালেদা জিয়ার মুখ দিয়ে বের হবে না যে, এই জিনিসটা তোকে দিলাম।

বর্তমানে খালেদা জিয়ার সঙ্গে একই কক্ষে আবদ্ধ ফাতেমা। শেষবার যখন দেখা হলো, তার বাবা বারবার ফাতেমাকে জিজ্ঞেস করছিলেন, কবে মুক্তি মিলবে?

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত