অ্যালার্ট জারি যুক্তরাষ্ট্রের প্র্যাকটিস হয়ে গেছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বাংলাদেশে অবস্থানরত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের জন্য মার্কিন সরকার যে অ্যালার্ট জারি করেছে, তেমন কিছু এখানে ঘটেনি বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বলেন, তারা হুমকির মুখে নেই। এটা যুক্তরাষ্ট্রের একটা প্র্যাকটিস হয়ে গেছে। এদেশে তারা ঝুঁকিতে নেই। আজ সকালে রাজধানীর মিরপুর পুলিশ স্টাফ কলেজে ‘ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম: সার্ক পারস্পেকটিভ’ শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক কোর্সের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

দুই সপ্তাহব্যাপী এই প্রশিক্ষণ কের্সের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। এতে সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, মালদ্বীপ ও ভুটানের পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তারা অংশ নিচ্ছেন। ৩ দেশের ৬ জন ও বাংলাদেশের ১৪ জনসহ মোট ২০ জন কর্মকর্তা এই প্রশিক্ষণ নেবেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে সাংবাদিকরা জানতে চান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সম্প্রতি বাংলাদেশে অবস্থানরত তাদের নাগরিকদের চলাচলের ওপর সতর্কতা জারি করেছে। সরকারের পক্ষ থেকেও এ রকম সতর্কতা জারি করা হয়েছে কিনা? জবাবে তিনি বলেন, প্রথমে বলে নিই- রেড অ্যালার্ট নয়, তারা তাদের নাগরিকদের অ্যালার্ট দিয়েছে।

আমরা জানি না কী কারণে তারা অ্যালার্ট দিয়ে থাকে।

এর আগে শুক্রবার বিকালে মার্কিন সতর্কবার্তার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, ঝড়ঝাপটা ও নানা দুর্যোগের মধ্যদিয়েও বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, তখন হঠাৎ করেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিরাপত্তা সতর্কবার্তা জানিয়েছে, কিন্তু কেন তারা এ ধরনের সতর্কবার্তা দিল তা বুঝতে পারলাম না। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ ধরনের কোনো নিরাপত্তাঝুঁকি যদি থেকেই থাকে, তা হলে আমাদের গোয়েন্দা সংস্থাকে অবহিত করলেই পারত।

পুলিশ স্টাফ কলেজে অনুষ্ঠান শেষে বিএনপির চেয়ারপারসনের মুক্তি প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া যদি প্যারোলে মুক্তির জন্য আবেদন করেন, তাহলে বিষয়টি চিন্তা-ভাবনা করে জানানো হবে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আগামী ৯ই এপ্রিল পাবনার শহীদ আমিন উদ্দিন স্টেডিয়ামে ৬১৪ জন চরমপন্থী আত্মসমর্পণ করবেন। তাদের কৃতকর্মের জন্য তারা লজ্জিত। তারা ভালোর পথে আসবেন বলে আবেদন করেছেন। তার ভিত্তিতেই আত্মসমর্পণের ব্যাপারে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আন্তর্জাতিক কোর্সের উদ্বোধনে আরও বক্তব্য রাখেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী ও স্বরাষ্ট্রসচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ স্টাফ কলেজের রেক্টর রৌশন আরা বেগম।

বক্তারা বলেন, এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সার্ক অঞ্চলের বহুজাতিক অপরাধ মোকাবিলা করা যাবে। সার্কভুক্ত দেশগুলোর পুলিশ কর্মকর্তাদের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধি পাবে। পুলিশি সেবার অনুশীলন সম্পর্কে মতবিনিময় হবে। এর আগে মিরপুর পুলিশ স্টাফ কলেজে একই ধরনের পাঁচটি প্রশিক্ষণ হয়।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত