নামের আগে যেভাবে ‘টেলি’ যুক্ত হলো

তার নাম আবদুস সামাদ। তবে দেশবাসী তাকে টেলি সামাদ নামেই চিনে। বাংলা চলচ্চিত্রে টেলি সামাদ একজনই।

তবে আবদুস সামাদ থেকে কীভাবে টেলি সামাদে পরিণত হলেন সে কথা এ প্রজন্মের অনেকেরই অজানা।

বিভিন্ন ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানে এই প্রশ্নের জবাব অনেকবারই নাকি দিয়েছিলেন তিনি। চারুকলার ছাত্র ছিলেন তিনি। সেখানে আবদুস সমাদ নামেই চিনত সবাই তাকে।

তবে অভিনয় জগতে এসে কীভাবে টেলি সামাদ হলেন? নামের আগে ‘টেলি’ শব্দটি কেন ব্যবহার করতেন এই অভিনেতা? ভক্ত-অনুরাগী ও সাংবাদিকদের সেই কৌতূহলের জবাব অনেকবার দিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেছিলেন সেই ঘটনার কথা। স্বাধীনতার পর পর টেলিভিশনে খুবই জনপ্রিয় ছিলেন টেলি সামাদ। চলচ্চিত্রে তার উপস্থিতি যেন ছবি হিট। তার কৌতুক দেখতে হলে দর্শকরা ভিড় জমাতো ।

সবখানেই তখন তাকে নিয়ে চর্চা হতো। সবার মুখে একই কথা ছিল, অনেক দিন পর ভালো একজন কৌতুক অভিনেতা পাওয়া গেছে।

টেলি সামাদ জানান, একদিন বিটিভির অনুষ্ঠানের আমন্ত্রিত হই। তখন সেখানে বিটিভির ক্যামেরাম্যান মোস্তফা মামুন বলেন, ‘সামাদ শুন, আজ থেকে তোর নাম টেলি সামাদ। সেই থেকেই আমি আবদুস সামাদ থেকে হয়ে গেলাম টেলি সামাদ।’

অভিনয়কে ভালোবেসে জীবনের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত এ জগতেই ব্যস্ত থাকতে চেয়েছিলেন টেলি সামাদ।

গণমাধ্যমে সাক্ষাতকার দিতে গিয়ে তিনি বলেছিলেন, অভিনয় ছাড়া বাঁচা আমার পক্ষে অসম্ভব। বেশকিছু ছবিতে অভিনয়ের ব্যপারে কথা হচ্ছে। কিন্তু চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

টিভিতে সরাসরি একটি গানের অনুষ্ঠান করারও পরিকল্পনা ছিলো তার। সে অনুষ্ঠানে তিনি নিজেই জনপ্রিয় কিছু গান গাইবেন বলে জানা গিয়েছিল। কিন্তু কিছুই করা হলো না তার।

শারীরিক অসুস্থতার জন্য জীবনের শেষ ইচ্ছা পূরণ হয়নি।

অসুস্থতার সঙ্গে লড়তে লড়তে আজ (৬ এপ্রিল) দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে মৃত্যুবরণ করেন এই অভিনেতা।

টেলি সামাদ ঢাকাই ছবির একজন জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা। টিভি, চলচ্চিত্রও মঞ্চে অভিনয়ে অবাদ বিচরণ ছিল তার। অভিনয় ক্যারিয়ারে টেলি সামাদ ৬ শতাধিক সিনেমাতে অভিনয় করেছেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত