‘মুরসির পতন ও সিসিকে ক্ষমতায় আনতে ভূমিকা রেখেছে ইসরাইল’

মিশরের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির পতন ও বর্তমান প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসিকে ক্ষমতায় আনতে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রেখেছে ইসরাইল। এমনটাই জানিয়েছেন ইসরাইলি সেনাবাহিনীর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আরিয়াহ এল্ডাদ। দেশটির একটি সংবাদপত্রে এ তথ্য জানিয়ে একটি কলাম লিখেছেন ওই সেনা কর্মকর্তা। এ খবর দিয়েছে মিডল ইস্ট মনিটর।

মিশরের ইতিহাসের প্রথম নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি ছিলেন দেশটির মুসলিম ব্রাদারহুড দলের নেতা। তাকে যে বিপ্লবের মাধ্যমে হটিয়ে দেয়া হয়েছিল তা জানুয়ারি বিপ্লব নামে পরিচিত। এটিই হয়েছিল ইসরাইলের মদদে। মুরসি ক্ষমতায় বসার পর ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ করতে শুরু করেছিলেন। তিনি পূর্ববর্তী শাসকদের সময়ে ইসরাইলের সঙ্গে করা শান্তিচুক্তি বাতিল করে দেন। পাশাপাশি সিনাই উপত্যকায় সেনা মোতায়েন বৃদ্ধি করেন।

ফলে তাকে সরিয়ে দিতে উদ্যোগ নেয় ইসরাইল।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আরিয়াহ এল্ডাদ বলেন, এ পর্যায়ে এসে ইসরাইল মুরসিকে সরিয়ে ইসরাইলের জন্য সুবিধাজনক আল-সিসিকে ক্ষমতায় আনার জন্য উঠে পরে লাগে। এ জন্য তারা ক’টনৈতিক চেষ্টা ও পরবর্তীতে আরো বেশি গভীরে হাত দেয়। একইসঙ্গে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার থেকেও এ বিষয়ে সমর্থন আদায় করে ইসরাইল। সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের আরব রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গেও সিসির রয়েছে অসাধারণ সুসম্পর্ক।

এল্ডাদ লেখেন, ক্যাম্প ডেভিড চুক্তির ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে মিশরকে একটি সাবমেরিন উপহার দেয় ইসরাইল। এটা প্রমাণ করে ইসরাইল এ অঞ্চলে সৌহার্দ্য বজায় রাখতে কতখানি আগ্রহী। উল্লেখ্য, আরব রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে জর্ডান ও মিশরই প্রকাশ্যে ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করেছে। ইসরাইলের সঙ্গে মিশরের রয়েছে ক’টনৈতিক ও বানিজ্যিক সম্পর্কও।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত