সৌদি আরব ক্ষেপণাস্ত্র ঠেকালেও রুখতে পারেনি ড্রোন

ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীদের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করেছে সৌদির বিমান প্রতিরক্ষাব্যবস্থা। তবে দুই ড্রোন দিয়ে সৌদির গুরুত্বপূর্ণ একটি শহরে হামলা করেছে ইয়েমেনের হুথি বাহিনী। এতে শিশু ও নারীসহ পাঁচজন বেসামরিক নাগরিক আহত হয়েছেন। এছাড়া ক্ষেপণান্ত্রের আঘাতে একজন বেসামরিক লোক নিহত হয়েছে।

বুধবার এ তথ্য জানায় সৌদি জোটের মুখপাত্র তুর্কি আল মাইকি। সৌদি প্রেস এজেন্সির বরাত দিয়ে এএফপি জানায়, ড্রোন দুটির লক্ষ্য ছিল সৌদির দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের খামিস মুশায়িত শহরের গুরুত্বপূর্ণ বিমানঘাঁটিতে।

এতে বলা হয়, মঙ্গলবার স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৯টার দিকে সৌদি বিমান প্রতিরক্ষাব্যবস্থা দুটি বস্তু শনাক্ত করে যেগুলো বেসামরিক এলাকার দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল। তিনি বলেন, পরে সেগুলোকে ধ্বংস করা হয়। এদিকে ইয়েমেনি হুথি বিদ্রাহীরা সৌদি আরবে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করে। এ ছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুটি শহরের আবুধাবি ও দুবাই শহরের বিমানবন্দরেও হামলার দাবি করছে।

ক্ষেপণাস্ত্র হামলা নিয়ে সৌদি বলছে, হুথির ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র দেশটির বিমান প্রতিরক্ষাব্যবস্থা ঠেকিয়েছে। তবে স্রাপনেলে একজন বেসামরিক লোক নিহত হয়েছে। এদিকে সংযুক্ত আরব আমিরাত ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কথা অস্বীকার করে। ২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে ইয়েমেনি সরকারের সহযোগিতায় সৌদি জোট হুথি বিদ্রাহীদের ওপর বিমান হামলা শুরু করে। এতে কয়েক লাখ বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত