সানি-অমিত, শাবনূর-মৌসুমীরা কোথায়: আলমগীর

আজ ৩ এপ্রিল বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস। এবারের চলচ্চিত্র দিবস উদযাপিত হচ্ছে দুই দিনব্যাপী। প্রথমদিনে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে চলচ্চিত্র দিবসের উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বুধবার সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বিএফডিসিতে আসেন। তাকে ফুল দিয়ে বরণ করেন চলচ্চিত্র উদযাপন কমিটির সদস্যরা। চলচ্চিত্র দিবসের উদ্বোধনের আগে তথ্যমন্ত্রী বিএফডিসিতে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। আনুষ্ঠানিকতা শেষে নিজের বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ চলচ্চিত্রের মধ্যে ঐক্যের ডাক দেন।

তবে চলচ্চিত্র দিবসের অনুষ্ঠান অভিনয়শিল্পীদের উপস্থিতি কম দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেন চিত্রনায়ক আলমগীর। তিনি বলেন, আমাদের চলচ্চিত্র একটি সংকটময় অবস্থায় আছে। আরেকটি সংকট দেখা দিতো ১২ এপ্রিল থেকে প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ হলে। কিন্তু মন্ত্রী মহাদয় (তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ) এটা হতে দেননি। এজন্য উনাকে ধন্যবাদ জানাই।

তিনি বলেন, সমস্যা সব জায়গায় আছে, আমাদের চলচ্চিত্রেও আছে। কিন্তু আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে পদক্ষেপ নিচ্ছেন এতে আমি খুব আশাবাদী। আমাদের চাকা আবার ঘুরবে।

‘তবে আমার প্রশ্ন হচ্ছে জাতীয় চলচ্চিত্র দিবসে আমাদের শিল্পীরা কোথায়? আমি নাম ধরে বলতে চাই, মৌসুমী, শাবনূর, ওমর সানি, অমিত হাসানরা কোথায়? আমি এমন আরও ৩০টা নাম নিতে পারি। আপনারা কিন্তু সবাই এই চলচ্চিত্র থেকে তারকা হয়েছেন, অভিনেতা হয়েছেন, অনেক কিছু হয়েছেন। আপনাদের কাছে কার্ড পাঠালে যথেষ্ঠ নয়। আপনাদের বারবার অনুরোধ করে এখানে আনা যায় না। কিন্তু এ চলচ্চিত্র আপনাদের সব দিয়েছে।

প্রয়াত নায়ক রাজ রাজ্জাকের কথা স্মরণ করে আলমগীর বলেন, তিনি নিজে থেকে আমাকে জিজ্ঞাসা করে বলতেন, ৩ এপ্রিল তোমরা কী আয়োজন করেছ? তবে এখন সেই মানসিকতা কোথায়? বাড়ি থেকে সেধে আনতে হবে কেনো?

শিল্পীদের উদ্দেশ্য করে আলমগীর আরও বলেন, আপনারা যদি চলচ্চিত্র থেকে কিছু পেয়ে থাকেন। তাহলে কিন্তু চলচ্চিত্রকে কিছু দিতে হয়। আপনারা দিতে ভুলে গেছেন। দিতে শিখুন একটু। সবাই আমার ছোট ভাই-বোনের মতো। আপনারা কেন আসবেন না? এটা চলচ্চিত্র দিবস।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত