ক্রাইস্টচার্চ হামলায় নিহতদের ৫ জন ভারতের

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে ভয়াবহ হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫০ জনে দাঁড়িয়েছে। তাদের মধ্যে পাঁচ ভারতীয় রয়েছেন বলে জানিয়েছে নিউজিল্যান্ডে ভারতীয় হাইকমিশন।

রোববার এক টুইট বর্তায় হাইকমিশন বলে, ‘খুব দুঃখের সঙ্গে জানাতে হচ্ছে, ক্রাইস্টচার্চে জঙ্গি হামলার ঘটনায় আমরা পাঁচ ভারতীয়কে হারিয়েছি।’

এর আগে শনিবার ভারতের হাই কমিশন টুইট করে জানিয়েছিল, দুই ভারতীয় বংশোদ্ভূতসহ যে ৯ জন ভারতীয় নিখোঁজ রয়েছেন তাদের সন্ধান চালছে। স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখা হচ্ছে এ বিষয়ে।

হাইকমিশন নিহত ভারতীয়দের একটি তালিকাও প্রকাশ করেছে। তারা হলেন- মেহবুব খোকার, রামিজ ভোরা, আসিফ ভোরা, আন্সি আলিভাবা এবং ওজাইর কাদির।

আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ওজাইর কাদির (২৫) হায়দরাবাদের বাসিন্দা। পড়াশোনার জন্য নিউজিল্যান্ডে গিয়েছিলেন তিনি। কেরলের বাসিন্দা আন্সি আলিভাবা(২৫) লিঙ্কন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকোত্তর ছাত্রী। গুজরাটের ভদোদরার বাসিন্দা রামিজ ভোরা ও আরিফ ভোরা। তারা সম্পর্কে বাবা-ছেলে। হামলায় গুরুতর আহত হয়েছিলেন তারা। পরে তাদের মৃত্যু হয়। মেহবুব খোকার(৬৩) আমদাবাদের বাসিন্দা।

গত শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দু’টি মসজিদে বন্দুকধারী সন্ত্রাসী ব্রেনটন টারান্টের হামলায় ৫০ জন নিহত ও অর্ধশতাধিক আহত হন। এখনও ৩৪ জনকে ক্রাইস্টচার্চ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে, তাদের মধ্যে ১২ জন নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে রয়েছেন। স্থানীয় সময় গত শুক্রবার বেলা দেড়টার দিকে আল নূর মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করতে যাওয়া মুসল্লিদের ওপর প্রথমে হামলা চালানো হয়। এর একটু পরে লিনউড মসজিদে দ্বিতীয় হামলা হয়। ফেসবুকে লাইভে গিয়ে আল নূর মসজিদে স্বয়ংক্রিয় রাইফেল নিয়ে হামলা চালান ব্রেনটন। ওই মসজিদে নামাজ আদায় করতে যাচ্ছিলেন নিউজিল্যান্ড সফরে থাকা বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যরা। কয়েক মিনিটের জন্য তারা প্রাণে বেঁচে যান।

এ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ব্রেনটনকে হত্যার দায়ে অভিযুক্ত করে শনিবার ক্রাইস্টচার্চ আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় আদালত তার রিমান্ড মঞ্জুর করেন। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে একজনের নাম উল্লেখ করে ব্রেনটনের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে। এছাড়া আরও কয়েকটি অভিযোগ আনার প্রস্তুতি চলছে। ব্রেনটনকে শনিবার যখন আদালতে হাজির করা হয়, তখন তার পরনে ছিল বন্দীদের সাদা পোশাক। হাতে হাতকড়া। পা ছিল খালি। তিনি ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে হাসছিলেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত