কাঁদলেন, কাঁদালেন তামিম ইকবালের ‘মা’

নিউজিল্যান্ডে যখন জুমার সময় তখন গভীর ঘুমে মগ্ন বাংলাদেশের মানুষ। একদিকে গভীল রাত অন্যদিকে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ক্লান্তি কাটাতে হয়তো একটু বেশিই বিছানায় ছিলেন। কিন্তু ভয়ানক এক ঘটনায় সবার নিদ্রাই কেড়ে নিয়েছে।ঠিক এমনটাই হয়েছে বাংলাদেশ দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান তামিম ইকবালের মা নুসরাত ইকাবলের(ববি)।

শুক্রবার (১৫ মার্চ) জুমার নামাজ আদায় করতে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নূর নামক একটি স্থানিয় মসজিদে জুম্মার নামায পড়তে যাচ্ছিলেন তামিম-মুশফিকেরা, তারা পৌঁছানোর আগেই সন্ত্রাসী হামলায় মারা যান একাধিক মানুষ।এক অজ্ঞাত নারীর কল্যাণে বেঁচে গেলেন বাংলাদেশের ক্রিকেট দল। তা না হলে শেষ হয়ে যেত দেশের সফলতম দলটি।

সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় এদিন হচকচিয়েই ঘুম থেকে উঠেছেন মা নুসরাত ইকবাল। যে মাঠে খেলা তার পাশের মসজিদে হামলার খবর শুনে ভীষণ মুষড়ে গিয়েছিলেন তামিমের মা। জানেন তামিম নামাজ আদায় করতে যাবেনই। গিয়েছেনও। সেই হামলা থেকে প্রাণে ফিরে মা’কে ফোন দিলেন তামিম।আর সে ঘটনা বর্ণনা করতে গিয়ে কাঁদলেন এবং কাঁদালেন।

তামিমের মা বলেন, ‘ও (তামিম) আমাকে ফোন দিয়ে বলে, আম্মু দশ সেকেন্ডর জন্য বেঁচে গেছি।’ এরপর কান্নায় ভেঙে পড়েন তামিম ইকবালের মা।কিছুক্ষণ পর ফের সেই বর্ণনা দেন। ‘আল্লাহর অশেষ রহমতে ওরা বেঁচে গেছে।তা না হলে অন্য কিছু হয়ে যেত।সবার দোয়া এবং আল্লাহ নিজের হাতে সেভ করেছেন।ওই সময় ও খুব ভয়ের মধ্যে ছিল।’

এরপর দেশ বাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন তামিমের মা।‘সবাই দোয়া করেন যেন সুস্থভাবে সবাই বাংলাদেশে ফিরে আসে।মায়ের কাছে ফিরে আসে।’

নিরাপত্তার বিষয়েও কথা বলেন তামিমের মা।‘বিশ্বব্যাপী এখন এমন হচ্ছে।তাই উচিত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।’

পাঠকের মতামত