নোয়াখালীতে লিফটের বক্সে পড়ে নারীর মৃ’ত্যু

প্রকাশিত: জানু ৩১, ২০২১ / ১১:২৮অপরাহ্ণ
নোয়াখালীতে লিফটের বক্সে পড়ে নারীর মৃ’ত্যু

অ’সু’স্থ শ্বশুরকে দেখতে এসে হাসপাতালের ক্র’টিপূর্ণ লিফটের বক্সে পড়ে জহুরা বেগম (৪০) নামের এক নারীর মৃ’ত্যু হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি দু’র্ঘ’টনা বললেও রোগীর স্বজনদের বক্তব্য শুনে বিষয়টি খতিয়ে দেখে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অ’ব’হে’লা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রোববার বিকাল ৫টার দিকে নোয়াখালী জেলা শহর মাইজদীর জি-৮ গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতাল প্রাইভেট লিমিটেড ৪র্থ তলায় এ দু’র্ঘ’ট’না ঘটে।

নি’হ’ত জহুরা বেগম লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের খুরশিদ আলমের স্ত্রী।

নি’হ’তে’র স্বজনরা বলছেন, গত ২৯ জানুয়ারি জহুরার শ্বশুর আনোয়ারুল ইসলাম সড়ক দু’র্ঘ’ট’নায় মা’রা’ত্ম’ক আ’হ’ত হন। ওই দিন সন্ধ্যায় উনাকে মাইজদী জি-৮ গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালের চতুর্থ তলার ৪১৭ নম্বর কক্ষে ভর্তি করা হয়। ভর্তির পর থেকে হাসপাতালটির লিফট চতুর্থতলায় কাজ করছিল না। এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার জানালেও তারা কোনো প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

রোববার দুপুরে অ’সু’স্থ শ্বশুরকে দেখতে ছেলেকে নিয়ে হাসপাতালে আসেন জহুরা। সন্ধ্যায় শ্বশুরকে দেখে ছেলেকে নিয়ে বাড়ি যাওয়ার জন্য হাসপাতালের নিচে নামতে লিফটের কাছে গিয়ে সুইচে চা’প দেন তিনি। কিছুক্ষণের মধ্যে দরজা খুললেও লিফটি পাঁচতলায় চলে যায়, কিন্তু চার তলায় লিফট আছে ভেবে তিনি ভিতরে পা দিতেই ছিটকে নিচে পড়ে যা’ন।

হাসপাতালের লোকজন বিষয়টি দেখতে পেয়ে জহুরাকে উ’দ্ধার করে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃ’ত্যু হয়। নি’হ’তের স্বজনদের অ’ভি’যো’গ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অ’ব’হে’লা ও ত্রু’টি’পূর্ণ লিফটের কারণেই জহুরার মৃ’ত্যু হয়েছে। তারা এ ঘটনার সু’ষ্ঠু বি’চা’র দা’বি করেছেন।

হাসপাতালটির চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক মানিক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, চতুর্থতলায় লিফটি কাজ করছিল না। এটি একটি দু’র্ঘ’ট’না।

সুধারাম মডেল থানার ওসি শাহেদ উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ মৃ’ত্যু’র বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অ’ব’হে’লা পে’লে তাদের বি’রু’দ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। একই সঙ্গে ওই লিফটি ব’ন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন