ফাইনালে আবারো ভারতের কাছে বাংলাদেশের স্বপ্নভঙ্গ

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের দুই ওপেনার দলকে ভালো শুরু এনে দিলেও তানজিদ হাসানের ইনিংস বড় হয়নি। ৪টি চার হাঁকানো ইনিংসে ২৪ বলে ২৬ রান করে তিনি সাজঘরে ফেরেন রাভি বিষণইয়ের শিকার হয়ে। এরপর দলের হাল ধরেন পারভেজ হোসেন ইমন, নতুন ব্যাটসম্যান মাহমুদুল হাসান জয়কে সঙ্গে নিয়ে। ৫৮ রানে প্রথম উইকেটের পতন ঘটার পর দ্বিতীয় উইকেটে দুজনে গড়েন ১১৫ রানের পার্টনারশিপ।

জুটি ভাঙে ইমন বিদায় নিলে। তার আগে ৬৪ বলের মোকাবেলায় করেন ৬০ রান। অপর প্রান্তে মাহমুদুল হাসান জয় আগলে রাখলেও একপ্রান্তে আসা-যাওয়ায় ব্যস্ত তৌহিদ হৃদয় (০), শাহাদাত হোসেন (৬) আকবর আলী (১) বিদায় নিলে দল চাপে পড়ে যায়। এরপর সেই চাপ সামলানোর চেষ্টা একাই করে গেছেন মাহমুদুল। শেষদিকে তাকে সঙ্গ দিয়েছেন শামিম হোসেন (৩২)। শেষ বলে রান আউট হওয়ার আগে ১৩৪ বলের মোকাবেলায় ১০৯ রান করেন মাহমুদুল, যে ইনিংসে ছিল ৯টি চার ও ১টি ছক্কা।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতেই জয়ের ভিত পেয়ে যায় ভারত। দুই ওপেনারের দৃঢ়তায় প্রথম উইকেটের খোঁজ পেতে ২২ ওভার অপেক্ষা করতে হয়েছে বাংলাদেশকে। ইনিংসের ২৩তম ওভারের প্রথম বলে রাকিবুলের বল দিব্যআঁশ সাক্সেনার ব্যাটে লেগে ফের ফিরে আসে রাকিবুলের কাছে। বিচক্ষণ বোলার তা তালুবন্দী করতে কোনো ভুল করেননি। ফলে অর্ধ-শতক হাঁকানো সাক্সেনার ইনিংসের ইতি ঘটে।

সাজঘরে ফেরার আগে ৬৫ বলের মোকাবেলায় ৫৫ রান আসে সাক্সেনার ব্যাট থেকে, হাঁকিয়েছেন ৫টি চার। তার বিদায়ের পর ক্রিজে আসেন অধিনায়ক প্রিয়ম গার্গ। তবে সাজঘরে ফেরেন আরেক ওপেনার ইয়াশাসভি জাইসওয়াল। তিনিও অর্ধ-শতক পূর্ণ করার পরপরই সাজঘরে ফেরেন। ইনিংসের ২৬তম ওভারের প্রথম বলে রাকিবুলের বল জাইসওয়ালের ব্যাট ছুঁয়ে জায়গা খুঁজে নেয় উইকেটরক্ষক অধিনায়ক আকবর আলীর গ্লাভসে। তার আগে ৭২ বলের মোকাবেলায় ৫০ রান করেন জাইসওয়াল, হাঁকিয়েছেন ৬টি চার।

দলীয় ১২৬ রানে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরেন প্রাঙ্গেশ দুর্গেশ কানপিলেওয়ার। ম্যাচ তখন যেন বাংলাদেশের দিকে তাকিয়ে হাসছে। তবে এরপর প্রতিরোধ গড়ে তোলেন অধিনায়ক প্রিয়ম গার্গ ও ধ্রুব জুরেল। প্রিয়ম ৭৩ রান করে বিদায় নিলেও জুরেলের অপরাজিত ৫৯ রানের ইনিংস দলকে জয়ের পথ দেখায়। ভারত ৬ উইকেটের জয় পায় ৮ বল হাতে রেখেই। বাংলাদেশের পক্ষে রাকিবুল হাসান দুটি এবংশরীফুল ইসলাম ও মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী একটি করে উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

টস: বাংলাদেশ
বাংলাদেশ ২৬১ (৫০ ওভার)
মাহমুদুল ১০৯, ইমন ৬০, শামিম ৩২, তানজিদ ২৬
মিশ্র ৩৩/২, কার্তিক ৪৯/২

ভারত ২৬৪/৪ (৪৮.৪ ওভার) (লক্ষ্য ২৬২ রান)

গার্গ ৭৩, জুরেল ৫৯*, সাক্সেনা ৫৫, জাইসওয়াল ৫০,
রাকিবুল ১২/২, শরীফুল ৪২/১, মৃত্যুঞ্জয় ৪৯/১
ফল: ভারত ৬ উইকেটে জিতে চ্যাম্পিয়ন।

সূত্র : বিডিক্রিকটাইম

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত