ট্রাম্পকে অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেবেন একাধিক রিপাবলিকান

প্রকাশিত: জানু ১৩, ২০২১ / ১১:২৪পূর্বাহ্ণ
ট্রাম্পকে অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেবেন একাধিক রিপাবলিকান

দলের মধ্যে বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিয়ন্ত্রণ ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়ছে। কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের একজন শীর্ষ নেতাসহ অন্তত চারজন রিপাবলিকান সদস্য জানিয়েছেন, তাঁরা ট্রাম্পকে অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেবেন। সংবাদ সংস্থা রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে গত ৬ জানুয়ারি নজিরবিহীন হামলার ঘটনায় ডোনাল্ড ট্রাম্প মদদ ছিল অভিযোগ করে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে সোমবার অভিশংসন প্রস্তাব এনেছেন ডেমোক্র্যাটরা। এই অভিশংসনের পক্ষ নিয়েছেন একাধিক রিপাবলিকান সদস্য। এই সংখ্যা বাড়ছে বলে সংবাদমাধ্যম ফোর্বসের খবরে বলা হয়েছে। এখন পর্যন্ত যেসব রিপাবলিকান সদস্য ট্রাম্পকে অভিশংসনের পক্ষে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন তাঁরা হলেন হাউসের তৃতীয় শীর্ষ নেতা লিজ চেনি, জন কাটকো, অ্যাডাম কিনজিনজার ও ফ্রেড আপটন।

‘বিদ্রোহে উসকানির’ অভিযোগে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এই অভিশংসন প্রস্তাব আনা হয়েছে। হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এই প্রস্তাব উত্থাপন কররেন।

ডেমোক্র্যাটরা আগেই জানিয়েছিল, ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সরাতে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স সংবিধানের ২৫তম সংশোধনী অনুযায়ী না এগোলে আজ বুধবার হাউসে ভোটাভুটি হবে। মাইক পেন্স এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে অপসারণে ২৫ তম সংশোধনী ব্যবহার করবেন না।

ডেমোক্র্যাটদের অভিশংসন প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ক্যাপিটলে হামলা চালিয়ে ভাঙচুরের ঘটনায় সমর্থকদের উৎসাহ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট। কোনো তথ্য প্রমাণ ছাড়াই ৩ নভেম্বরের নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ করে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম কোনো প্রেসিডেন্ট দ্বিতীয়বারের মতো অভিশংসনের মুখে পড়েছেন। এর আগে ২০১৯ সালে ট্রাম্পকে অপসারণে নিম্নকক্ষে অভিশংসন প্রস্তাব পাস হয়। তবে উচ্চকক্ষ সিনেটের রায়ে তা বানচাল হয়ে যায়। মার্কিন সংবিধান অনুযায়ী, হাউস সদস্যদের সংখ্যাগরিষ্ঠ সমর্থন পেলে প্রেসিডেন্ট অভিশংসিত হবে। কিন্তু, প্রেসিডেন্টকে হোয়াইট হাউস ছাড়া করতে সিনেটের দুই-তৃতীয়াংশের সদস্যের সমর্থন প্রয়োজন হয়।

ট্রাম্পকে অভিশংসন করা প্রসঙ্গে হাউসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট আমাদের দেশ, গণতন্ত্র ও আমেরিকার জনগণের জন্য হুমকি। তাঁকে (ট্রাম্প) দ্রুতই সরাতে হবে।’

চমকে দেওয়া তথ্য

এদিকে ট্রাম্পের অভিশংসন প্রক্রিয়াটি আটকাতে সাহায্য করার জন্য নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে অনুরোধ করেছে বাইডেনকে বিজয়ের স্বীকৃতি দেওয়া হাউস রিপাবলিকানদের মধ্যে একটি দল। এক চিঠিতে বাইডেনকে ওই রিপাবলিকান সদস্যেরা, ‘মার্কিন সংবিধানের প্রতি বিশ্বস্ততা দেখিয়ে এবং পরিস্থিতি ঠান্ডা করার জন্য’ বাইডেনকে অভিশংসন প্রক্রিয়া ঠেকাতে সাহায্য করার আহ্বান জানান।

অভিশংসনের সমালোচক

হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের অন্যতম রিপাবলিকান নেতা স্টিভ ক্যালিস অবশ্য ট্রাম্পকে অভিশংসনের একেবারে বিরোধী। তিনি বলেছেন, ‘আমার মনে হয় না কেউ বলতে পারবে যে আমাদের দেশকে ঐক্যবদ্ধ করে সুসংহত করতে এই প্রেসিডেন্টকে অভিশংসন করা কোনো কাজে আসবে।’

ট্রাম্পের বিপক্ষে সাবেকরা

অন্যদিকে গত সোমবার রিপাবলিকানদের ২২ জন সাবেক আইনপ্রণেতা ট্রাম্পকে অভিশংসনের আহ্বান জানিয়ে কংগ্রেসে চিঠি দিয়েছেন।

দেখার বিষয় যেটি

হাউসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসিত হওয়া এখন কেবল সময়ের ব্যাপার বলা চলে। তবে, ট্রাম্প সিনেটে দোষী সাব্যস্ত হবেন কি না, সেটাই এখন দেখার বিষয়। ট্রাম্পের অভিশংসনের পক্ষে খোলাখুলি অবস্থান না নিলেও ট্রাম্পের পদত্যাগ কিংবা অপসারণকে সমর্থন করছেন বেশ কয়েকজন সিনেটর। তবে, সিনেটে ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করতে হলে ডেমোক্রেটিক পার্টিকে ১৭ জন রিপাবলিকান সিনেটরের ভোট পেতে হবে। এদিকে, ট্রাম্প হোয়াইট হাউস ছাড়ার আগে সিনেটে অভিশংসনের বিচার হবে না বলে এরই মধ্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকান দলীয় নেতা মিচ ম্যাকোনেল।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন