বাদশাহ আলমগীরের হাতে লেখা কুরআন মাজিদ

প্রকাশিত: জানু ১২, ২০২১ / ০৪:৫৫অপরাহ্ণ
বাদশাহ আলমগীরের হাতে লেখা কুরআন মাজিদ

ষষ্ঠ মোঘল সম্রাট আবুল মুজাফফর মুহিউদ্দিন মুহাম্মদ আওরঙ্গজেব বাহাদুর আলমগীর। বাদশাহ আলমগীর নামেই বেশি পরিচিতি। তিনি শুধু শাসকই ছিলেন না নিজ হাতে লিখেছেন পুরো কুরআন, সেলাই করতে টুপি। তার হাতে লেখা কুরআনুল কারিমের একটি কপি তেলঙ্গানার হায়দারাবাদ স্টেট মিউজিয়াম পাবলিক গার্ডেনে আজও সংরক্ষিত।

বাদশাহ আওরঙ্গজেব আলমগীর একজন হাফেজ ছিলেন। তিনি ৪৯ বছর সম্রাজ্য পরিচালনা করেছেন। মোঘল সম্রাট হওয়া সত্ত্বেও তিনি সাধারণ জীবন যাপন করতেন। নিজ হাতে টুপি সেলাই করতেন। নিজ প্রয়োজনে সম্রাজ্যের সম্পদ ব্যয় করতেন না। নিজেই নিজের খরচ বহন করতেন।

এ মোঘল সম্রাট শুধু এক কপি লিখেই থেমে থাকেননি বরং তিনি কুরআনুল কারিমের ১৫ কপি নিজ হাতে লিখেছেন। শুধু তাই নয়, তাঁর আরেকটি গুণ ছিল, তিনি নিজ হাতে টুপি সেলাই করতেন। বাদশাহ আলমগীরের নিজ হাতে লিখিত কুরআনুল কারিমের একটি কপি দক্ষিণ রাজ্যের তেলঙ্গানার হায়দারাবাদের স্টেট মিউজিয়াম পাবলিক গার্ডেনে সংরক্ষিত আছে।

ইটিভি ভারতের তথ্য মতে, তেলঙ্গানার এ মিউজিয়ামটিতে হাতে লেখা কুরআনের এ পাণ্ডুলিপি ছাড়াও মোঘল সম্রাট শাহজাহানসহ অন্যান্য রাজা-বাদশাহদের সময়ের অনেক সিলমোহর অংকিত একাধিক কুরআনের পাণ্ডুলিপিও সংরক্ষিত আছে।

হায়দরাবাদের প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ ড. মুহাম্মদ সাফিউল্লাহ গণমাধ্যম ইটিভি ভারতকে জানান যে, বাদশাহ আওরঙ্গজেব আলমগীর রহমাতুল্লাহি আলইহির জীবনযাপন ছিল অতি সাধারণ। বাদশাহ আওরঙ্গজেব আলমগীর যখন ইন্তেকাল করেন, তার হাতে বোনা টুপি বিক্রয় করেই প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে তার দাফন করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য বাদশাহ আলমগীর হায়দারাবাদের ৭ম নিজাম মীর উসমান আলী খান বাহাদুর স্টেট জাদুঘরটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। ভারতে মুসলিম ঐতিহ্যের শহর আওরঙ্গবাদ শহরও তার নামেই নামকরণ করা হয়। সম্প্রতি বিজেপি রাজ্য সভাপতি আওরঙ্গবাদ শহরের নাম পরিবর্তনের অভিমত ব্যক্ত করেছে। আর হিন্দুত্ববাদী সংগঠন শিবসেনা ও বিজেপি আওরঙ্গবাদের নাম পরিবর্তন করে শম্ভুজিনগর রাখার ঘোষণা দিয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন