ট্যাটুর বিল দিতে না পারায় বিব’স্ত্র করে বেঁ’ধে রাখা হলো গাছে!

প্রকাশিত: জানু ১২, ২০২১ / ০১:৪০অপরাহ্ণ
ট্যাটুর বিল দিতে না পারায় বিব’স্ত্র করে বেঁ’ধে রাখা হলো গাছে!

ট্যাটুর বিল দিতে না পারার অভিযোগ তুলে ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে এক তরুণকে বিব’স্ত্র করে পলিথিন পেঁচিয়ে গাছে বেঁ’ধে রাখার খবর পাওয়া গেছে। সম্প্রতি দেশটির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন কিছু ছবি ভাইরাল হয়েছে।

চলতি শীত মৌসুমে ভিয়েতনামজুড়ে পড়ছে কনকনে ঠাণ্ডা। গড় তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে। তাই বিব’স্ত্র অবস্থায় রাস্তায় ঘুরে বেড়ানো কোনোভাবেই স্বাভাবিক না। তার ওপর যদি কাউকে এমন ঠাণ্ডার মধ্যে পলিথিনে মুড়ে গাছে বেঁ’ধে রাখা হয়, তবে তা স্বাভাবিকভাবেই আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেয়।

ওই তরুণের গায়ে জড়ানো পলিথিনের ওপরে লেখা ছিল ‘ট্যাটুর বিল দেয়া আমার অপছন্দ’। এমন ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট হতেই ভাইরাল হয়ে যায়।

প্রথমে সবাই বিষয়টিকে বন্ধুদের মধ্যে ‘মজা’ বা ট্যাটু আর্টিস্টদের প্রচারণার কৌশল ভাবলেও পরে ভুল ভাঙে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া এক পোস্টে ট্যাটু পার্লারটির মালিক ওই তরুণকে বেঁ’ধে রাখার ঘটনার ব্যাখ্যা দিয়েছেন। তিনি জানান, ট্যাটু করানোর পর আংশিক বিল দিয়ে চলে গিয়েছিলেন ওই তরুণ। তারপর আর কখনও তিনি ফিরে আসেননি। এরপর তাকে খুঁজে এনে ‘শিক্ষা দিতে’ লোক ভাড়া করেন দোকান মালিক।

এরপরই তাকে ধরে এনে পলিথিনে মুড়ে ‘শাস্তি’ হিসেবে গাছে বেঁ’ধে রাখা হয়। কনকনে ঠাণ্ডার মধ্যে ওই তরুণকে ঠিক কতক্ষণ এমন অত্যাচার সহ্য করতে হয়েছিল তা জানা যায়নি। তবে দোকান মালিকের দাবি, ‘করুণা’ করে কিছুক্ষণ পরেই তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

‘তার কাছে বিল দেয়ার মতো টাকা ছিল না। কিন্তু আমি তাকে ক্ষমা করে দিয়েছি।’ এখন পর্যন্ত পুলিশ এ ঘটনায় কাউকে আটক বা গ্রেফতার করেনি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন