নতুন করে ক’ঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে মালয়েশিয়া

প্রকাশিত: জানু ১০, ২০২১ / ০৩:০৮অপরাহ্ণ
নতুন করে ক’ঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে মালয়েশিয়া

কভিড-১৯ এর সংক্রমন রোধে আবারও ক’ঠোর পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে মালয়েশিয়া। ১ মাসের জন্য সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন চালু করতে যাচ্ছে সরকার। সরকারের বেশ কিছু মাধ্যমের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে দেশটির জনপ্রিয় অনলাইন দ্যা স্টার।পত্রিকাটি বলছে, সরকারের বেশিরভাগ মন্ত্রী-ই সম্পূর্ণ লকডাউনের পক্ষে নয়, ক্রমে-ই সচল হওয়া অর্থনীতির কথা চিন্তা করে এমসিও চালুর পক্ষে মত দিয়েছেন তারা। মঙ্গলবার এ নিয়ে পার্লামেন্টে আলোচনাও হবে।

তৃতীয় দফা করোনা সংক্রমনে প্রতিদিন-ই আক্রান্ত হচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ। সম্প্রতি এ সংখ্যা ৩ হাজার ছাড়ানোর পর আবারো মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার চালুর সিদ্ধান্ত আসছে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যম সূত্র বলছে। সূত্র আরো বলছে, রাজনৈতিক উত্তাপ নিয়ে নয় বরং বন্যা ও করোনা মোকাবেলায় অধিক মনোযোগ দিচ্ছে বর্তমান সরকার।

এ নিয়ে ১১ই জানুয়ারি সোমবার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেয়ার কথা রয়েছে দেশটির প্রধানমন্ত্রী তানশ্রী মহিউদ্দিন ইয়াসিনের। ধারণা করা হচ্ছে, ঐ ভাষণেই তিনি আগামী এক মাসের জন্য এমসিও চালুর ঘোষণা দেবেন। পূর্বঘোষিত ২০ জানুয়ারি থেকে স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত এবং ফেব্রুয়ারিতে চায়না নতুন বছর উদযাপন নিয়েও কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী।

ক’ঠোর এমসিও এর মাধ্যমে গেলো বছরের মার্চের মতোই নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনে বাধ্য করা হবে জনগনকে। বিশেষ করে ধর্মীয় উপসলায়, খেলাধূলা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাধ্যবাধকতা আনা হতে পারে। তবে নতুন এ পদক্ষেপ দেশটির অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মন্তব্য করেছেন মালয়েশিয়ার শিল্প কারখানার মালিকদের একাধিক সংগঠন।

অবশ্য দেশটির শিল্পমন্ত্রী দাতুক সেরি আজমিন আলি বলছেন, শিল্প কারখানাগুলো ক’ঠোর এমসিও মেনে চলতে প্রস্তুত আছে কি না এটি নিয়ে সরকারকে ভাবতে হবে। সকল বিজনেস এসোসিয়েশনের সঙ্গে কথা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রনালয়ের সমন্বয়ে একটি যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন শিল্পমন্ত্রী। উল্লেখ্য, তৃতীয় দফা করোনা সংক্রমনে বেশিরভাগ-ই অভিবাসী এবং তারা বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে কর্মরত। মূলত অভিবাসিদের এই করোনা সংক্রমন নিয়ন্ত্রণে সরকার ক’ঠোর পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন