মাউন্টেইন সাইক্লিংয়ে চ্যাম্পিয়ন পেলেন ৩ লাখ টাকা

প্রকাশিত: ডিসে ৩১, ২০২০ / ১২:২৫পূর্বাহ্ণ
মাউন্টেইন সাইক্লিংয়ে চ্যাম্পিয়ন পেলেন ৩ লাখ টাকা

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত মাউন্টেইন সাইক্লিং প্রতিযোগিতা বান্দরবানের থানচি উপজেলায় পুরস্কার বিতরণীর মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। সাইক্লিং প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়নকে ৩ লাখ টাকা পুরস্কার, ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদান করা হয়।

বুধবার বিকালে সমাপনী অনুষ্ঠানে থানচি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রধান অতিথি পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি আনুষ্ঠানিকভাবে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডিসিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ ২০২০ প্রতিযোগিতায় ১২ ঘণ্টা ১০ মিনিট ৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় রাকিবুল ইসলাম। আর প্রথম রানার্সআপ হয় মোহতাব ইবনে আজম এবং দ্বিতীয় রানার্সআপ হয় মো. আলাউদ্দিন। তারা যথাক্রমে- ১২ ঘণ্টা ২৩ মিনিট ৬ সেকেন্ড ও ১২ ঘণ্টা ৪৯ মিনিট ১৮ সেকেন্ড সময় নেয়।

চ্যাম্পিয়ন রাকিবুল ইসলামকে ৩ লাখ টাকা, প্রথম রানার্সআপ মোহতাব ইবনে আজমকে ২ লাখ টাকা এবং দ্বিতীয় রানার্সআপ মো. আলাউদ্দিনকে ১ লাখ টাকা পুরস্কার, ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদান করা হয়। প্রতিযোগিতায় দেশের ১০০ সাইক্লিং প্রতিযোগী অংশ নেয়।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব সফিকুল আহম্মদের সভাপতিত্বে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈ হ্লা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল আলম নিজামি, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আছাদুজ্জামান প্রমুখ উপস্থিতি ছিলেন।

অনুষ্ঠানে পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে পাহাড়ে নতুনমাত্রা সংযোজন, পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে অ্যাডভেঞ্চার ক্রীড়া পর্যটনকে অগ্রসর করা, স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে মাউন্টেইন বাইকের সঙ্গে পরিচিতকরণ, আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করা, নতুন প্রজন্মকে শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য বিকাশে সক্ষমতা বৃদ্ধি, নিরাপদ ও টেকসই বাহন হিসেবে মাউন্টেইন বাইককে পরিচিতকরণ, পরিবেশবান্ধব ও সাশ্রয়ী বাহন হিসেবে মাউন্টেইন বাইকের প্রচলন, মাদকমুক্ত সমাজ গড়ার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডিসিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ ২০২০ এর আয়োজন করা হয়েছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের পর্যটন সম্ভাবনাকে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে চাই। শান্তিপূর্ণ পার্বত্য অঞ্চলের প্রকৃতি, বৈচিত্র্য, ঐতিহ্য ও জীবনাচরণ পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে এ ধরনের আয়োজন আগামীতেও অব্যাহত থাকবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ ডিসেম্বর পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ির সাজেক থেকে শুরু হয় বঙ্গবন্ধু ট্যুর ডিসিএইচটি এমটিবি চ্যালেঞ্জ ২০২০। প্রতিযোগিতায় দেশের ১০০ জন নারী-পুরুষ অংশ নেয়।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন