যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে সৌদি ও আমিরাতের যুবরাজকে তলব

প্রকাশিত: ডিসে ৩০, ২০২০ / ০২:২৪অপরাহ্ণ
যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে সৌদি ও আমিরাতের যুবরাজকে তলব

সৌদি আরব ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাত ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল নাহিয়ানকে তলব করেছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত।

কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আলজাজিরার সংবাদ উপস্থাপিকা গা;দা ওউইস মো;বাইল ফোন; হ্যা;কিংয়ের অ;ভি;যো;গে দায়ের করা মা;ম;লা;য় তাদের তলব করা হয়।

আদালত উভ;য় অভি;যুক্তকে জ;বা;ব দেয়ার জন্য ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় বেঁ;ধে দিয়েছেন। মামলা;য় অন্য ;আ;সামিদের মধ্যে সৌদির যুবরাজ সালমানের সাবেক সহযোগী সৌদ আল-কাহতানিসহ অনেকেই রয়েছেন। এই তালিকায় সৌদির আল আরাবিয়াহ গণমাধ্যমকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

মাম;লার উদ্দেশ্য হল, ভবিষ্যতে এ ধরনের কা;র্যকলাপ থেকে বিরত থাকা। একই সঙ্গে হ্যা;কিং-এর ফলে যে ক্ষ;য়ক্ষ;তি হয়েছে তার জন্য ৫ হাজার মার্কিন ডলার ক্ষ;তিপূরণ চাওয়া হয়েছে। মামলার ফলে আল-জাজিরা কর্মীদের ফোনে নজরদারি এবং হ্যা;কিং এর রহস্য; উন্মোচন হবে বলে ধারণা ক;রা যাচ্ছে। গাডা ওউইড-এর করা মা;ম;লা ন্যা;য় বিচারে;র সূচনা বলেও উল্লেখ করা হয়।

সম্প্রতি কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার অন্তত ৩৬ কর্মীর মোবাইল ফোন হ্যাক করে ইসরাইলি প্রতিষ্ঠান এসএসও গ্রুপের একটি স্পাইওয়্যার দিয়ে।

সাইবার নিরাপত্তা গবেষকরা এই তথ্য জানান। হ্যাকিংয়ের শিকার হওয়া ৩৬ জনের মধ্যে আল জাজিরার কর্মী, টিভি উপস্থাপক ও নির্বাহী কর্মকর্তারা রয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আইফোন অপারেটিং সিস্টেমের একটি দুর্বলতা কাজে লাগাতে ইসরাইলি স্পাইওয়্যার ব্যবহার করা হয়। এটি সৌদি ও আমিরাত থেকে হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, সন্ত্রাসে পৃষ্ঠপোষকতার অভি;যোগ তুলে ২০১৭ সালে কাতারের সঙ্গে কূটনেতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক স্থগিত রাখার ঘোষণা দেয় সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিসর।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন