ধুলায় অন্ধকার

প্রকাশিত: নভে ২৭, ২০২০ / ০৮:২০অপরাহ্ণ
ধুলায় অন্ধকার

শীতের শুরুতেই আবহাওয়া শুষ্ক হওয়ায় রাজবাড়ীতে বাতাসের সাথে ধুলাবালির পরিমাণ বেড়েছে। একদিকে ক’রো’না ম’হা’মা’রি, অন্যদিকে ধুলা আর দূ’ষ’ণে অ’তি’ষ্ঠ সাধারণ মানুষ। আর সে মাত্রা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে যথা সময়ে চলমান সড়ক সংস্কারের কাজ শেষ না হওয়া। এতে সড়ক যানবাহন চলাচলে ধুলার দু’ষ’ণ ছড়াচ্ছে এবং নানা রোগে আ’ক্রা’ন্তে’র শি’কা’র হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। দূ’ষি’ত হচ্ছে বাতাস কমছে অক্সিজেনের মাত্রা। আর এ কারণে বাড়ছে সাধারন মানুষের মাঝে বিভিন্ন রো’গে’র প্র’কো’প ও সং’ক্র’ম’ণ।

রাজবাড়ীর প্রধান সড়কের কাজের মেয়াদকাল গত বছর শেষ হলেও বড়পুল থেকে জেলখানা পর্যন্ত এক কিলোমিটার অংশ, জৌকুড়া ধাওয়া পাড়া পাঁচ কিলোমিটার, কালুখালী রেল গেট ও পাংশা মহাসড়কের বেশিরভাগ অংশ এবং বিভিন্ন গ্রামীন স’ড়’কে’র উন্নয়ন কাজ শেষ হয়নি।

স্থানীয় বাসিন্দা সাইদুর রহমান, আকমল হোসেন, রুবি বেগম জানান, একদিকে ক’রো’না’ভা’ই’রা’স। অন্যদিকে ধুলায় জীবন অ’তি’ষ্ঠ। বাড়ি ধেতে বের হতে পারেন না তারা। নানা ধরনের রোগ দেখা দিয়েছে তাদের।

রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডা. ইব্রাহীম টিটন বলেন, ক’ভি’ড-১৯ ম’হা’মা’রি এ সময়ে সবাইকে স’ত’র্ক থাকা এবং শীতকাল হওয়ার কারণে বাতাসে ধুলাবালির পরিমান বেশি থাকার কারণে শ্বা’স’ক’ষ্ঠ’জ’নিত রোগসহ বিভিন্ন ধরনের রোগ বালাই হওয়ার সম্ভবনা থাকে। শীত ও ঠাণ্ডা জনিত কারণে ক’রো’না’র প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আ’দ্র’তা ও তাপমাত্রার কমে যাওয়ায় নানা ধরনের সমস্যা থেকে দূরে থাকতে এবং ধুলাবালি ও ক’রো’না’র আ’ক্র’ম’ণ থেকে পরিত্রাণ পেতে সকলকে অবশ্যই মাস্ক পরার পরামর্শ দেন তিনি।

রাজবাড়ী স’ড়’ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী কেবিএম সাদ্দাম হোসেন বলেন, রাজবাড়ীর সড়কের বড়পুল, বাগমাড়া জৌকুড়া সড়কসহ বিভিন্ন অংশে কাজ চলমান রয়েছে এবং ভূমি হস্তান্তর জটিলতার কারণে চলমান কাজ বাঁ’ধা’গ্র’স্ত হচ্ছে। ঠিকাদারকে দ্রুত কাজ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন