মালয়েশিয়ায় ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা ও দা’লা’ল’সহ ৪৬ জন গ্রে’প্তা’র

প্রকাশিত: নভে ১৯, ২০২০ / ১২:০০পূর্বাহ্ণ
মালয়েশিয়ায় ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা ও দা’লা’ল’সহ ৪৬ জন গ্রে’প্তা’র

অ’বৈ’ধ অভিবাসীদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতার করার অ’ভি’যো’গে দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগ এবং দু’র্নী’তি দ’ম’ন কমিশন (এমএসিসি) এর ‘স্টিং অপস সেল্ট’ অ’ভি’যা’নে তাদের গ্রে’প্তা’র করা হয়।

পুত্রাজায়া, সেলেঙ্গর, জোহর বাড়ু, সাবাহ ও সারাওয়াক প্রদেশ থেকে তাদের গ্রে’প্তা’র করা হয়েছে। তাদের ২৭ জন অভিবাসন কর্মকর্তা। অন্যরা বিভিন্ন এজেন্ট ও শ্রমিকদের মধ্যাস্থতাকারী দা’লা’ল। তারা সম্মিলিতভাবে একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট তৈরি করে এই দু’র্নী’তি করে আসছিলো।

প্রতিবেদনে বলা হয়, অ’বৈ’ধ বা কা’লো তালিকায় থাকা অভিবাসীদের কাছ থেকে এজেন্ট ও দা’লা’লের মাধ্যমে ইমিগ্রেশন অফিসাররা মোটা অংকের অর্থ নিতেন। ইমিগ্রেশন বিভাগে স্বশরীরে হাজির না হয়েই তাদের পাসপোর্টে আগমণ ও বহির্গমণ ইমিগ্রেশন সিল বা স্টিকার লাগিয়ে দেয়া হতো; যাতে বুঝা যায়- তারা কা’লো তালিকায় নেই। তারা সম্প্রতি মালয়েশিয়া ত্যা’গ করে আবার মালয়েশিয়া প্রবেশ করেছেন।

এই কাজের জন্য তারা প্রত্যেক অভিবাসীর কাছ থেকে ৬ হাজার রিংগিত নিতেন। এমএসিসির পরিচালক (তদন্ত) নওরজলান মোহাম্মদ রাজালী গে’প্তা’রে’র বিষয়টি নিশ্চিত করলেও মন্তব্য করেননি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন