সব মার্কিন নাগরিকের প্রেসিডেন্ট হব, প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি: বাইডেনের টুইট

প্রকাশিত: নভে ৮, ২০২০ / ০৭:২৪পূর্বাহ্ণ
সব মার্কিন নাগরিকের প্রেসিডেন্ট হব, প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি: বাইডেনের টুইট

রীতিমতো ইতিহাস গড়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হলেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। আর এই জয়ের জন্য তিনি সব মার্কিন নাগরিকের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

স্থানীয় সময় শনিবার জয়ের পর প্রথম টুইটে যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এই কৃতজ্ঞতা জানান। টুইটে তিনি লেখেন, ‘আমেরিকা, এই মহান দেশের নেতৃত্বের সুযোগ দেওয়ায় আমি সম্মানিত বোধ করছি।‘

‘আমাদের কাজ অনেক কঠিন হলেও আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি: আমি সব মার্কিন নাগরিকের প্রেসিডেন্ট হব— আমাকে ভোট দিন বা না দিন।‘

মার্কিন নাগরিকদের উদ্দেশে টুইটে বাইডেন যোগ করেন, ‘আপনারা আমার ওপর যে বিশ্বাস রেখেছেন, তা আমি রক্ষা করব।’

স্থানীয় সময় আজ শনিবার বিবিসি ও সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্যা’টলগ্রাউন্ডখ্যাত পেনসিলভানিয়ায় পপুলার ভোটে জিতে গেছেন জো বাইডেন। এই অঙ্গরাজ্যের ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের সংখ্যা ২০টি।

জয়ের ফলে এখানকার সব ভোট পেয়েছেন জো বাইডেন। আর এর মধ্য দিয়ে তিনি কাঙ্ক্ষিত ২৭০ ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেলেন। এখন জো বাইডেনের মোট ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের সংখ্যা দাঁড়াচ্ছে ২৭৩।

অপরদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইলেকটোরাল কলেজ ভোটর সংখ্যা ২১৪। যদিও এখনো অ্যারিজোনা, জর্জিয়া ও নেভাদায় ভোট গণনা চলছে। এই তিনটি অঙ্গরাজ্য বাদ দিয়েই ট্রাম্পকে হারালেন বাইডেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জো বাইডেন এখন পর্যন্ত পপুলার ভোট পেয়েছেন সাত কোটি ৩০ লাখের বেশি। আমেরিকায় আর কোনো প্রেসিডেন্ট এত মানুষের ভোট পেয়ে নির্বাচিত হননি। অপরদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন প্রায় সাত কোটি ভোট। সেটাও আমেরিকায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দ্বিতীয় সর্বাধিক ভোট।

দীর্ঘ প্রায় ৫০ বছরের রাজনৈতিক জীবনে অনেকদিন থেকেই হোয়াইট হাউসে যাওয়ার স্বপ্ন দেখে আসছিলেন বাইডেন। এবার সেই স্বপ্নপূরণ হলো ৭৭ বছর বয়সী বাইডেনের। তিনি আগামী জানুয়ারি মাসে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন।

জো বাইডেনের জন্ম ১৯৪২ সালের ২০ নভেম্বর পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের স্ক্রানটনে। চার ভাই-বোনের মধ্যে সবার বড় বাইডেন বেড়ে ওঠেন স্ক্রানটন, নিউ ক্যাসল কাউন্টি ও ডেলাওয়ারের মধ্যেই। বাবা জোসেফ রবিনেট বাইডেন সিনিয়র আর আইরিশ বংশোদ্ভূত মা ক্যাথরিন ইউজেনিয়া ফিনেগান।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন