নারীদের পর্দার নির্দেশ দিয়ে দুঃখ প্রকাশ করলেন জনস্বাস্থ্যের পরিচালক

প্রকাশিত: অক্টো ২৯, ২০২০ / ১০:২৮অপরাহ্ণ
নারীদের পর্দার নির্দেশ দিয়ে দুঃখ প্রকাশ করলেন জনস্বাস্থ্যের পরিচালক

জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটে (আইপিএইচ) কর্মরত ইসলাম ধর্মাবলম্বী নারীদের পর্দা মেনে চলার ও পুরুষদের পোশাকবিধি নির্ধারণের নির্দেশ দেওয়ার পর ভুল স্বীকার করে তা সরিয়ে নিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ডা. মুহাম্মদ আব্দুর রহিম।

গতকাল বুধবার জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের পরিচালক ডা. মুহাম্মদ আব্দুর রহিম এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নির্দেশনায় বলেন, ‘অফিস চলার সময় জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে মোবাইল ফোনের শব্দ বা মোবাইল ফোন বন্ধ রাখতে হবে।

ইনস্টিটিউটের পুরুষদের টাকনুর উপরে এবং মহিলাদের হিজাবসহ টাকনুর নিচে কাপড় পরিধান করা আবশ্যক এবং পর্দা মেনে চলার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো।’

এই বিজ্ঞপ্তি নিয়ে গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। এরপর বিকেলে ডা. মুহাম্মদ আব্দুর রহিমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘এই বিজ্ঞপ্তি শুধু অফিসের ভেতরের জন্য। এটা কিন্তু গণমাধ্যমে দেইনি। এটা নিয়ে আর কিছু বলতে চাচ্ছি না।’

এর মধ্যেই আজ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পরিচালককে শোকজ করার নোটিশ দেওয়া হয়। এবং আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে নির্দেশের ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

এরপরই আজ সন্ধ্যায় নতুন এক বিজ্ঞপ্তিতে ডা. মুহাম্মদ আব্দুর রহিম আগের নির্দেশনা বাতিলের কথা জানান। নতুন বিজ্ঞপ্তিতে তিনি বলেন, ‘উক্ত বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশিত সংবাদটির জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখিত এবং সবার কাছে অনিচ্ছাকৃত এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে দুঃখ প্রকাশ করছি।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ‘সেই সঙ্গে গোটা জাতির কাছে বিনীতভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করছি এবং ভবিষ্যতে এই ধরনের ভুল হবে না বলে প্রতিজ্ঞা করছি।’

এদিকে বিকেলে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মাইদুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের (আইপিএইচ) পরিচালকের জারি করা পোশাক সংক্রান্ত নির্দেশনাটি আজই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর নজরে আসে।

তারপর মন্ত্রী বিষয়টির ক্ষেত্রে জরুরি পদক্ষেপ নিতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে তাৎক্ষণিক নির্দেশ দেন।’

‘এই পরিপ্রেক্ষিতে আজ স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর উভয় জায়গা থেকেই জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের পরিচালককে কারণ দর্শানোর চিঠি দেওয়া হয়েছে। আগামী ১ নভেম্বর এ ব্যাপারে আপডেট জানানো হবে’, যোগ করেন তথ্য কর্মকর্তা।

পরিচালককে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, “আপনি নিজ স্বাক্ষরে গত বুধবার ‘অফিস চলার সময় জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে মোবাইল ফোনের শব্দ বা মোবাইল ফোন বন্ধ রাখতে হবে। ইনস্টিটিউটের পুরুষদের টাকনুর উপরে এবং মহিলাদের হিজাবসহ টাকনুর নিচে কাপড় পরিধান করা আবশ্যক এবং পর্দা মেনে চলার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হলো’- মর্মে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন।”

‘এমতাবস্থায় জারিকৃত বিজ্ঞপ্তিটি কোন বিধিবলে এবং কোন কর্তৃপক্ষের অনুমতিক্রমে জারি করা হয়েছে তার স্পষ্টীকরণ ও ব্যাখ্যা আগামী তিন কর্ম দিবসের মধ্যে প্রেরণ করার জন্য অনুরোধ করা হলো’, যোগ করা হয় চিঠিতে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওই শোকজের পর আইপিএইচ পরিচালক ডা. মুহাম্মদ আব্দুর রহিম নতুন করে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন