টিকিট পেয়েও সৌদি যাওয়া হলো না, দম্পতির আকুল কান্না

প্রকাশিত: অক্টো ৮, ২০২০ / ০৪:২৮অপরাহ্ণ
টিকিট পেয়েও সৌদি যাওয়া হলো না, দম্পতির আকুল কান্না

করোনা মহামারী পরবর্তী সময় সকলের জন্য খুবই সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। পুরো বিশ্ব স্থগিত হয়ে যাওয়ায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে সবাইকেই বেগ পেতে হচ্ছে। বিশেষ করে যারা প্রবাসী আছেন তাদের। আর সৌদি গামী প্রবাসীরা বর্তমানে আছেন উভয় সংকটে।

টানা চারদিন টিকিটের জন্য কারওয়ান বাজারে দিনরাত কা’টিয়েছেন। বহু ক’ষ্টে টিকিটও পেয়েছিলেন। অনিশ্চয়তা কাটিয়ে আশায় বুক বেঁধেছিলেন প্রবাসে ফিরে সন্তান ও পরিবারের মুখে হাসি ফোটানোর। কিন্তু সঠিক তথ্যের অভাবে ফ্লাইট ধরতে না পেরে সেই আশার গুড়ে বালি।

চোখে ঘোর অন্ধকার দেখছেন রাজবাড়ীর এক দম্পতি। তাই হোটেল সোনারগাঁওয়ে সৌদি এয়ারলাইন্সের কার্যালয়ের সামনে বসেই বিলাপ করছেন তারা। কিন্তু বর্তমান সংকট’কালে আদৌ সৌদি যেতে পারবেন কি না, বুঝতে পারছেন না তারা।

সৌদি যেতে না পেরে বারবার কা’ন্নায় ভেঙে পড়ছেন আর অঝরে চোখের পানি মুছছেন রাজবাড়ি সদর উপজে’লার সিঙ্গাইর গ্রামের মোহাম্ম’দ মুমিন খান ও ব’ন্যা আক্তার। বুধবার (৭ অক্টোবর) সকাল ১০টায় সৌদি এয়ারলাইন্সের কার্যালয়ের সামনে বসেই বিলাপ করছিলেন এ দম্পতি।

কা’ন্নাজ’ড়িত কণ্ঠে মুমিন খান বলেন, ‘আমা’র ও আমা’র স্ত্রী’’র ফ্লাইট লেখা ৭ অক্টোবর ১টা ২০ মিনিটে। কিন্তু সেখানে লেখা নেই ১টা ২০ এএম নাকি পিএম। ফ্লাইট নম্বর এসভি ৮০৫, ৭ অক্টোবর, ১:২০।

সেটা যে ৬ অক্টোবর রাত হবে, রাত ১২টার পর ৭ অক্টোবর হবে, সেই ৬ অক্টোবর রাতেই ফ্লাইট, সেটা সৌদি এয়ারলাইন্সের কর্মক’র্তারা আমাকে বুঝিয়ে বলেননি। আমি কয়েকজনকে কাগজপত্র দেখিয়েছি, তারা বললো ৭ অক্টোবর দুপুর ১টা ২০ মিনিটে ফ্লাইট। কিন্তু যখন বুধবার সকালে এয়ারপোর্টে গেলাম, তারা বললো ফ্লাইট তো রাতে চলে গেছে। এরপরই যেন মা’থায় আকাশ ভেঙে পড়লো। ’

মুমিন খান বলেন, ‘সৌদি এয়ারলাইন্সের কর্মক’র্তারা সঠিক তথ্য বুঝিয়ে না দেওয়ায় আমা’র এ দশা হলো। আমি অশিক্ষিত মানুষ, তারা তো আমাদের বুঝিয়ে দিতে পারতো।

কিন্তু তারা তখন কিছুই বলেনি। আমাদের দুজনেরই ভিসার মেয়াদ আছে, কিন্তু এখন যে পরিস্থিতি, আবার কবে যে টিকিট পাই, সেটাই এখন সবচেয়ে বড় সংকট। ’

এ দম্পতি থাকেন সৌদি আরবের আবাহা প্রদেশে। সেখানে দু’জনই গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করেন। মহামা’রি করো’না ভাই’রাস শুরুর আগে গত ১ ফেব্রুয়ারি দেশে ফেরেন তারা।

তিন মাসের ছুটিতে এসে এপ্রিলে সৌদি ফেরার কথা ছিল। কিন্তু ততদিনে সৌদি আরবের সঙ্গে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যায়।

অন্য প্রবাসীদের মতো তাদেরও দুশ্চিন্তায় দিন কাটে। অবশেষে ১৫ সেপ্টেম্বর সৌদি আরব আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর অনুমতি দিলে সেখানে ফিরে যাওয়ার স্বপ্ন দেখেন এ দম্পতি। অনেক অ’পেক্ষার পর ৫ অক্টোবর টিকিট পান তারা। কিন্তু তথ্য বি’ভ্রাটে আ’ট’কে গেলো তাদের সৌদি যাত্রা।

মুমিন খান বলেন, এয়ারপোর্ট থেকে সরাসরি এয়ারলাইন্সের কার্যালয়ে এসে তাদের জানিয়েছি, তারা বলেছে অ’পেক্ষা করতে। সবার টিকিট দেওয়া শেষ হলে হয়তো সন্ধ্যায় ডাকতে পারে। এখন অ’পেক্ষায় রয়েছি

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন