লাঙ্গল মার্কায় ভোট চাইলেন মীর আবদুস সবুর

প্রকাশিত: অক্টো ৭, ২০২০ / ১২:৪৬পূর্বাহ্ণ
লাঙ্গল মার্কায় ভোট চাইলেন মীর আবদুস সবুর

সাবেক রাষ্ট্রপতি পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের দেশ ও মানুষের জন্য ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বিবেচনা করে লাঙ্গল মার্কায় ভোট চেয়েছেন ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির মনোনীত সংসদ সদস্য প্রার্থী জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আবদুস সবুর।

মঙ্গলবার তার নির্বাচনী প্রধান কার্যালয় রায়েরবাগে এক কর্মী সম্মেলনে ও ডিএসসিসির ৪৮, ৬০, ৬২, ৬৩ নম্বর ওয়ার্ডে নির্বাচনী লিফলেট বিতরণকালে মীর আবদুস সবুর এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শাসনামলে উন্নয়ন, সুশাসন, সামাজিক বেষ্টনী, বিদ্যুৎ, গ্যাস, সংযোগসহ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ও মেহনতি শ্রমিকরা উপকৃত হয়েছেন।

এছাড়া ডিএনডি প্রতিরক্ষাবাঁধ, মুক্তিসরণি, বিশ্বরোড, সায়েদাবাদ জনপথ মোড়, ডেমরা আমুলিয়া সড়ক, ঢাকা-ডেমরা রাস্তা প্রশস্তকরণ, যাত্রাবাড়ী শহীদ ফারুক রোড, দোলাইরপাড় সড়ক, সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল, সায়েদাবাদ ধলপুর পানি শোধনাগার ও ধলপুর স্টেডিয়াম নির্মাণ করেন। এতে এলাকার এবং দেশের মানুষ আর্থ-সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে উপকৃত হয়েছেন।

মীর আবদুস সবুর বলেন, এরশাদ দেশের ও মানুষের সেবা করেছেন। তাই আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি এ এলাকার মানুষ এরশাদের কাছে ঋণী। আজ এরশাদ নেই।

আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করছি ১৭ অক্টোবর ঢাকা-৫ আসনের জনগণ এরশাদের মার্কা, জাতীয় পার্টির মার্কা, জনগণের মার্কা লাঙ্গল মার্কায় তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে আমাকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত করবেন। আপনাদের এ মূল্যবান ভোটে আমি নির্বাচিত হলে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের আত্মা শান্তি পাবে।

মীর আবদুস সবুর আরও বলেন, ১৯৮৮ সালের বন্যায় পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বুকসমান পচা পানিতে নেমে আর্তপীড়িত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ত্রাণ বিতরণসহ সব সমস্যা সমাধানে অক্লান্ত পরিশ্রম করে গেছেন।

এ দেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম, শুক্রবারের জুমার দিন ছুটি ঘোষণা, মসজিদ ও উপাসনালয়ের বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানির বিল মওকুফ, গুচ্ছগ্রাম, উপজেলা, হাজার হাজার কিলোমিটার সড়ক, যমুনা, মেঘনা, গোমতী, ব্রহ্মপুত্র, বুড়িগঙ্গা ধলেশ্বরীসহ দুই হাজারেরও অধিক ব্রিজ ও কালভার্ট নির্মাণ করেছেন।

সচিবালয়ের সবচেয়ে বড় ২২ তলা ভবন, নগর ভবন, পুলিশের ভবন, সেনাকল্যাণ ভবন, মৎস্য ভবন, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়সহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান হল, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল, মেয়েদের জন্য কুয়েত মৈত্রী হল নির্মাণ করেছেন।

ঢাকা-৫ এর কৃতীসন্তান সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম হাবিবুর রহমান মোল্লা ও হেদায়েত সাহেবদের উত্তরসূরি হিসেবে সুযোগ্য প্রার্থী হিসেবে আমাকে সমর্থন করলে তাদের আত্মা শান্তি পাবে।

আগামী ১৭ অক্টোবর ঢাকা-৫ আসনের জনগণ এরশাদের মার্কা, জাতীয় পার্টির মার্কা, জনগণের মার্কা লাঙ্গল মার্কায় তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে আমাকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত করবেন বলে আমার দৃঢ়বিশ্বাস।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন