নেত্রকোনায় আদালতে দ’ণ্ডিত হয়েও বেতন তুলছেন মাদ্রাসা সুপার

প্রকাশিত: অক্টো ৩, ২০২০ / ০৭:০০অপরাহ্ণ
নেত্রকোনায় আদালতে দ’ণ্ডিত হয়েও বেতন তুলছেন মাদ্রাসা সুপার

নেত্রকোনার মদনে একটি মাদ্রাসার সুপার অর্থ আ’ত্মসাৎ মা’মলার সাজাপ্রাপ্ত ও গ্রে’ফতারি পরোয়ানা জারি হওয়ার পরও তিনি স্বপদে বহাল রয়েছেন। একই সঙ্গে তিনি বেতন-ভাতা উত্তোলন করছেন বলে অভিযোগ ওঠেছে।

বিষয়টি নিয়ে মা’মলার বাদী ও এলাকার জনসাধারণের মাঝে ক্ষো’ভের সঞ্চার হচ্ছে। শনিবার বিকালে মা’মলার বাদী স্থানীয় সাংবাদিকদের বিষয়টি জানান।

অভিযুক্ত ওই সুপারের নাম মো. আজিজুল হক। তিনি মদন উপজেলার বাস্তা গ্রামের ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসায় কর্মরত। তার গ্রামের বাড়ি কেন্দুয়া উপজেলার বিদ্যাবল্লভ গ্রামে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আজিজুল হকের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। তবে ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার অ্যাডহক কমিটির সভাপতি আব্দুস ছালাম খান বলেন, আমরা এখন পর্যন্ত দালতের কোনো নির্দেশ পাইনি। এ কারণে সুপার গত আগস্ট মাস পর্যন্ত বেতন-ভাতা উত্তোলন করেছেন।

এ ব্যাপারে কেন্দুয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হাবিবুল্লাহ খান বলেন, আদালত মাদ্রাসা সুপার মো. আজিজুল হককে ছয় মাসের কারাদণ্ড ও নগদ ৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা দ’ণ্ডিত করেছেন। আজিজুল হক পলাতক রয়েছেন। শুনেছি তিনি আগস্ট মাসের বেতন উত্তোলন করেছেন। তাকে গ্রে’ফতার করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হচ্ছে। আশা করা যাচ্ছে দ্রুতই তাকে গ্রে’ফতার করে কা’রাগারে পাঠানো হবে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন