কলেজছাত্রকে লক্ষ্মীপুরে ডেকে নিয়ে পি’টিয়ে হ’ত্যা

প্রকাশিত: সেপ্টে ২৪, ২০২০ / ০৬:২৫অপরাহ্ণ
কলেজছাত্রকে লক্ষ্মীপুরে ডেকে নিয়ে পি’টিয়ে হ’ত্যা

লক্ষ্মীপুরে প্রেমসং’ক্রা’ন্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে মো. জাবেদ হোসেন নামের এক কলেজছাত্রকে ফোনে ডেকে নিয়ে পি’টি’য়ে হ’ত্যা’র অ’ভি’যো’গ উঠেছে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে নি’হ’ত কলেজছাত্রের লা’শ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে আ’ত্ম’হ’ত্যার নাটক সাজানো হয়েছে বলে দাবি তার স্বজনদের।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর উপজেলার বিজয়নগর গ্রামে প্রেমিকার নানার বাড়ি (ইন্দ্র পণ্ডিত বাড়ি) থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় ওই ছাত্রের লা’শ উ’দ্ধা’র করা হয়।

নি’হ’ত কলেজছাত্র জাবেদ একই ইউনিয়নের হাসন্দী গ্রামের শরীফ উল্যার ছেলে। সে লক্ষ্মীপুর দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে পড়ত।

নিহত কলেজছাত্রের স্বজনরা জানায়, সদর উপজেলার উত্তর হামছাদী ইউনিয়নের পূর্ব হাসন্দি গ্রামের মো. সেলিমের মেয়ের সঙ্গে কলেজছাত্র জাবেদের দুই বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। বিষয়টি জানাজানি হওয়ায় ক্ষি’প্ত হয় মেয়ের পরিবারের লোকজন।

একপর্যায়ে দুজনই পা’লি’য়ে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি টের পেয়ে মেয়ের ভাই ফরহাদ, রুবেল ও লিটনসহ কয়েকজন কৌশলে ফোনে জাবেদকে মেয়ের নানার বাড়িতে ডেকে নেয়।

এরপর জাবেদকে পি’টি’য়ে হ’ত্যা করে। পরে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে লা’শ’টি ঘরের ফ্যানের সঙ্গে ঝু’লি’য়ে রাখা হয় বলে অ’ভি’যো’গ নি’হ’ত কলেজছাত্রের স্বজনদের।

নি’হ’ত জাবেদের বাবা শরীফ উল্যা বলেন, ‘আমার ছেলেকে পি’টি’য়ে হ’ত্যা’র পর লাশ ঝু’লি’য়ে আ’ত্ম’হ’ত্যার নাটক সাজানো হয়েছে।’ এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।

হ’ত্যা’র বিষয় অস্বীকার মেয়ের স্বজনরা জানায়, পা’লি’য়ে যাওয়ার জন্য দুজন বিজয়নগরে মেয়ের নানার বাড়িতে একত্রিত হয়। কিন্তু মেয়ে পালাতে রাজি না হওয়ায় ক্ষো’ভে’র বশে ঘরের দরজা লাগিয়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে জাবেদ আ’ত্ম’হ’ত্যা করে। ঘটনার সঙ্গে তারা কেউই জড়িত নয় বলে দাবি করে তারা।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোসলেহ উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে ঘরের দরজা ভে’ঙে ঝুলন্ত অবস্থায় কলেজছাত্রের ম’র’দে’হ উ’দ্ধা’র করা হয়েছে।

লা’শ’টি’র শরীরে কোনো আ’ঘা’তের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তবে হ’ত্যা না আ’ত্ম’হ’ত্যা বিষয়টি সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন