বড়াইগ্রামে চার দিনের ভারী বর্ষণে ভেসে গেছে ২ কোটি টাকার মাছ

প্রকাশিত: সেপ্টে ২৩, ২০২০ / ০৭:৪৬অপরাহ্ণ
বড়াইগ্রামে চার দিনের ভারী বর্ষণে ভেসে গেছে ২ কোটি টাকার মাছ

নাটোরের বড়াইগ্রামে ভারী বর্ষণে প্রায় অর্ধশত পুকুর প্লাবিত হয়ে ভেসে গেছে মাছগুলো। উপজেলার গুডুমশৈল ও বিল দবিলার এসব পুকুরের দুই থেকে আড়াই কোটি টাকার মাছ বের হয়ে গেছে বলে দাবি ক্ষ’তিগ্রস্ত খামারীদের।

স্থানীয়রা জানান, গত রোববার থেকে শুরু হওয়া টানা চার দিনের ভারী বর্ষণে বিল ও বিল সংলগ্ন ম’রা বড়াল নদীর পানি ব্যাপক বেড়ে যায়। বিলের মুখে নদীর চুলকাটি অংশে স্থাপিত স্লুইস গেইটের পাল্লা দীর্ঘদিন ধরে অকেজো হয়ে রয়েছে। এতে নদীর পানি সহজেই এই অকেজো স্লুইস গেইট দিয়ে বিলে ঢুকে পড়েছে।

একদিকে ভারী বর্ষণ, অপরদিকে নদীর পানি ঢুকে বিলের মাঝখানের প্রায় ৫০টি পুকুর প্লাবিত হয়ে সব মাছ ভেসে গেছে।

গুডুমশৈল এলাকার সরকার ফিশারিজ অ্যান্ড এগ্রো লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাকির হোসেন সরকার জানান, বিলে আমার মোট ১০ একর জুড়ে পুকুর রয়েছে। এসব পুকুরে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ করেছিলাম। কয়েক দিনের ভারী বর্ষণে বিলের পানি বেড়ে পুকুরের পাড় ডুবে গিয়ে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে।

ক্ষ’তিগ্রস্ত মৎস্য খামারী সেলিম রেজা, দুলাল হোসেন, রজব আলী, জাহাঙ্গীর, মহিউদ্দিন, বাচ্চু ও আজাদ রহমান বলেন, খামারের সব মাছ ভেসে গিয়ে আমাদের এখন পথে বসার উপক্রম হয়েছে। এ ক্ষতি আমরা কিভাবে কাটিয়ে উঠবো ভেবে পাচ্ছি না।

এ ব্যাপারে উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, এটা একটা প্রাকৃতিক দু’র্যোগ, এখানে অধিদফতরের কোনো কিছু করার ছিল না। তবে ক্ষ’তিগ্রস্ত মৎস্য খামারীরা আমাদেরকে বিষয়টি জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে খোঁজ-খবর নিয়ে পরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন