সৌদিপ্রবাসী কর্মীরা টিকিট নিয়ে মহাসং’কটে

প্রকাশিত: সেপ্টে ২৩, ২০২০ / ০৪:১৭পূর্বাহ্ণ
সৌদিপ্রবাসী কর্মীরা টিকিট নিয়ে মহাসং’কটে

উড়োজাহাজের টিকিট না পেয়ে সময়মতো কর্মসংস্থলে পৌঁছানো নিয়ে মহা’সং’কটে পড়েছেন সৌদিপ্রবাসীরা। অন্তত ৩০ হাজার বাংলাদেশি সৌদি আরবে কর্মস্থলে ফেরার অপেক্ষায় আছেন। এঁদের বেশির ভাগের ভিসার মেয়াদ সেপ্টেম্বরে শেষ হয়ে যাবে।

এ পরিস্থিতিতে দেশের অন্যতম এই শ্রমবাজারে অক্টোবরের ১ তারিখ থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস এবং সৌদি এয়ারলাইনস আজ বুধবার থেকে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করতে যাচ্ছে।

কিন্তু সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সৌদি এয়ারলাইনস মাত্র দুটি ফ্লাইট চালাবে যা দিয়ে বিপুল পরিমাণ যাত্রীর চাপ সামাল দেওয়া কঠিন হবে। ফলে অনেকেই চাকরি হারানোর আ’শ’ঙ্কায় বি’ক্ষো’ভে নেমেছেন।

গতকাল মঙ্গলবার সোনারগাঁও হোটেলের নিচতলায় অবস্থিত সৌদি এয়ারলাইনসের কার্যালয়সহ আরো কয়েকটি স্থানে বি’ক্ষো’ভ করেছেন প্রবাসী কর্মীরা। হাজারো প্রবাসী কর্মী বি’ক্ষো’ভে নামলে সোনারগাঁও হোটেলের পাশের রাস্তায় যান চলাচল প্রায় ঘণ্টাখানেক বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে সমাধানের আশ্বাস দিলে বি’ক্ষো’ভকারীরা রাস্তা ছেড়ে দেন।

বি’ক্ষো’ভে আসা ভোলার জাহেদ হাসান গণমাধ্যমকে জানান, ২০ মার্চ তাঁর সৌদি আরব ফিরে যাওয়ার কথা ছিল। ক’রো’না মহা’মা’রির কারণে ফ্লাইট বন্ধ থাকায় তিনি তা পারেননি।

তিনি বলেন, ‘সৌদি কর্তৃপক্ষ আমার ভিসার মেয়াদ ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছে। কিন্তু দুই দিন ধরে চেষ্টা করেও আমি সৌদি ফিরে যাওয়ার টিকিট পাইনি।

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আমি সৌদি যেতে না পারলে চাকরি হারাব।’ তিনি জানান, অনেকের রিটার্ন টিকিট আছে, তবু তাদের টিকিট রি-ইস্যুর জন্য টাকা নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে বিমান বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোকব্বির হোসেন জানান, আগামী ১ অক্টোবর থেকে বিমানের সৌদি আরবে ফ্লাইট চালুর কথা রয়েছে।

তিনি জানান, সৌদি আরব ১ অক্টোবর থেকে সে দেশে বিমানের বাণিজ্যিক ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দিলেও আসন বরাদ্দ আরম্ভ করার আগে ল্যান্ডিং পারমিশন পাওয়া আবশ্যক।

কিন্তু ল্যান্ডিং পারমিশন পাওয়া যায়নি। ফলে যাত্রীদের আসন বরাদ্দ আরম্ভ করার জন্য ফ্লাইট এখনই ঘোষণা করা সম্ভব হচ্ছে না। ল্যান্ডিং পারমিশন পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ফ্লাইট ঘোষণা করা হবে এবং সবাইকে অবহিত করা হবে। ফ্লাইট ঘোষণার আগে কাউন্টারে ভিড় না করার জন্য যাত্রীদের অনুরোধ জানান তিনি।

বিমান বাংলাদেশ আরো জানায়, যেসব যাত্রীর কাছে সৌদি আরব যাওয়ার টিকিট আছে কেবল তাঁদের আসন বরাদ্দ করা হবে। আপাতত নতুন টিকিট বিক্রি করা হবে না। আসন বরাদ্দের বিস্তারিত তথ্য বিমানের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন