টিসিবি ৩৬ টাকা কেজিতে অনলাইনে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে

প্রকাশিত: সেপ্টে ২০, ২০২০ / ০৬:৩৪অপরাহ্ণ
টিসিবি ৩৬ টাকা কেজিতে অনলাইনে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে

সরকারি বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে অনলাইনে। এখন থেকে ঘরে বসে ক্রেতা কেজিপ্রতি ৩৬ টাকা দামে কিনতে পারবেন টিসিবির পেঁয়াজ। একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ তিন কেজি করে পেঁয়াজ কিনতে পারবেন।

টিসিবির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আরিফুল হাসানের একান্ত সচিব হুমায়ূন কবির অনলাইনে পেঁয়াজ বিক্রির বিষয়টি তদারকি করছেন। তিনি আজ রোববার বিকেলে এনটিভি অনলাইনকে এসব তথ্য জানান।

হুমায়ূন কবির বলেন, ‘মোট পাঁচটি প্রতিষ্ঠানকে অনলাইনে পেঁয়াজ বিক্রি করতে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে চালডাল, স্বপ্ন অনলাইন ও সবজিবাজারডটকম আজ থেকে বিক্রি শুরু করেছে।

প্রতিষ্ঠানগুলো কেজিপ্রতি ৩৬ টাকার বেশিতে বিক্রি করতে পারবে না। তবে ঘরে বসে পেঁয়াজ পেতে ক্রেতাকে কত টাকা চার্জ দিতে হবে, তা নির্ধারণ করবে সংশ্লিষ্ট অনলাইন প্রতিষ্ঠান। তারা চাইলে চার্জ নাও নিতে পারে।’

এদিকে আজ রোববার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং ই-কমার্সের আয়োজনে জুম প্লাটফর্মে টিসিবির ‘ঘরে বসে স্বস্তির পেঁয়াজ’-এর কার্যক্রম উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বিষয়টি বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

টিপু মুনশি বলেন, ‘যারা ট্রাক সেল থেকে পেঁয়াজ কিনতে পারছেন না, তাদের জন্য টিসিবি ই-কমার্সের সহযোগিতায় সাশ্রয়ী মূল্যের পেঁয়াজ বাসায় পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে।

অন্যান্য পণ্যের মতো এখন সাশ্রয়ী মূল্যের পেঁয়াজও ক্রেতারা বাসায় বসে কিনতে পারবেন। ই-কমার্সের মাধ্যমে পেঁয়াজ বিক্রির ধারণাটি নতুন, এ ক্ষেত্রে কিছু সমস্যা আসতে পারে। আমরা থেমে থাকব না, সমস্যার সমাধান করে এগিয়ে যাব।’

পেঁয়াজ নিয়ে দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের অভ্যন্তরে দেশি ও আমদানিকৃত পর্যাপ্ত পেঁয়াজ মজুদ রয়েছে। প্রাথমিকপর্যায়ে শুধু ঢাকা ও চট্টগ্রামে অনলাইনে এ পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করা হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে ই-কমার্সের আওতায় দেশের সব স্থানে টিসিবি সাশ্রয়ী মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করবে।’

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধি প্রতিরোধ ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির ক্রেতাদের ই-কমার্সে পেঁয়াজ পেতে এ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে সরকার।

প্রাথমিকভাবে দেশের পাঁচটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ৩৬ টাকা মূল্যে তিন কেজি করে পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে। পরে প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ও পেঁয়াজের পরিমাণ বাড়ানো হবে।

তবে টিসিবির চেয়ারম্যানের একান্ত সচিব হুমায়ূন কবির এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘ঢাকা ও চট্টগ্রামে অনলাইনে পেঁয়াজ বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও এখনো চট্টগ্রাম থেকে কোনো প্রতিষ্ঠান আমাদের কাছে পেঁয়াজ বিক্রির আবেদন করেনি। আবেদন করলে পরবর্তী সময়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এখন পর্যন্ত তিনটি প্রতিষ্ঠানকে বিক্রির অনুমতি দেওয়া হলেও এই সংখ্যা পরে বাড়ানো হবে।’

হুমায়ুন কবির বলেন, ‘প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে আপাতত প্রতিদিন ৫০০ কেজি করে মোট এক হাজার ৫০০ কেজি পেঁয়াজ দেওয়া হবে। একজন ক্রেতা একাধিকবার যাতে পেঁয়াজ না কিনতে পারেন এবং বিক্রেতা যাতে ৩৬ টাকার বেশি টাকায় বিক্রি করতে না পারে তা তদারকিতে কমিটি গঠন করা হয়েছে।’

‘এ ছাড়া আমাদের টিসিবির নিয়মিত কার্যক্রম চলমান থাকবে। আমরা প্রতিদিন ঢাকায় মোট ৮০টি গাড়িতে করে পেঁয়াজ বিক্রি করব। ঢাকা ছাড়াও সারা দেশে মোট ৩২৫টি গাড়িতে করে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি। সেখানে কেজিপ্রতি ৩০ টাকা করে বিক্রি করা হবে।’ যোগ করেন হুমায়ূন কবির।

ভারত গত ১৪ সেপ্টেম্বর হঠাৎ করে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। এরপর দেশে পেঁয়াজের দাম ব্যাপকভাবে বেড়ে যায়। দেশি পেঁয়াজের কেজি ১০০ টাকা ছাড়ায়। অবশ্য গত কয়েক দিন ধরে দাম পড়তির দিকে।

অনলাইনে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাণিজ্যসচিব মো. জাফর উদ্দিন, টিসিবির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আরিফুল হাসান, ই-ক্যাবের সভাপতি শমী কায়সারসহ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মচারী ও ই-ক্যাবের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন