সীমান্ত হত্যা শূন্যে না‌মিয়ে আনতে আমরা প্র‌তিশ্রু‌তিবদ্ধ : বিএসএফ ডিজি

প্রকাশিত: সেপ্টে ১৯, ২০২০ / ০২:১৭অপরাহ্ণ
সীমান্ত হত্যা শূন্যে না‌মিয়ে আনতে আমরা প্র‌তিশ্রু‌তিবদ্ধ : বিএসএফ ডিজি

বাংলাদেশ ও ভারত সীমান্তে নিরস্ত্র নাগরিকদের হত্যা, আহত ও মারধরের ঘটনা শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনার লক্ষ্যে ঝুঁকিপূর্ণ সীমান্তবর্তী এলাকায় যৌথ টহল বৃদ্ধি করার বিষয়ে উভয় দেশ সম্মত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজিবি ও বিএসএফ মহাপরিচালক।

ঢাকায় বিজিবি সদর দপ্তরে আজ শনিবার সকালে ৫০তম সীমান্ত সম্মেলন শেষে ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম ও বিএসএফের মহাপরিচালক রাকেশ আস্থানা।

রাকেশ আস্থানা বলেন, ‘সীমান্তে হত্যা বন্ধে সীমান্ত হত্যা শূ‌ন্যে না‌মি‌য়ে আন‌তে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। অপরাধী‌দের কো‌নো দেশ নেই, সীমা‌ন্তের দুই পা‌শেই তা‌দের অবস্থান।’

মহাপরিচালক পর্যায়ের ৫০তম এ সম্মেলনে সীমান্ত হত্যা বন্ধসহ, মাদক, অবৈধ অস্ত্র ও মানবপাচার রোধে সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়া আট বন্দিকে দ্রুত ফিরিয়ে দিতে সম্মত হয়েছে ভারত। সীমান্তে যেকোনো ইস্যুতে মানবাধিকারের বিষয়টি প্রাধান্য দেওয়ায় দুদেশ সম্মত হয়েছে। যৌথ টহলের (জয়েন্ট প্যাট্রলিং) ব্যাপারেও সম্মত হয়েছে বিজিবি-বিসিএফ।

বিজিবি সদর দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে গত বৃহস্পতিবার সকালে বিজিবি ও বিএসএফের মহাপরিচালক পর্যায়ে সীমান্ত সম্মেলন শুরু হয়। চার দিনব্যাপী সম্মেলনে বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলামের নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল অংশ নিয়েছে। এ দলে বিজিবির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, যৌথ নদী কমিশন এবং ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা প্রতিনিধিত্ব করছেন।

অন্যদিকে, ভারতের ছয় সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিএসএফের মহাপরিচালক রাকেশ আস্থানা।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন