ভারতের পেঁয়াজ আশা জাগিয়েও শেষ পর্যন্ত আসল না

প্রকাশিত: সেপ্টে ১৭, ২০২০ / ১২:২৩পূর্বাহ্ণ
ভারতের পেঁয়াজ আশা জাগিয়েও শেষ পর্যন্ত আসল না

বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারত। ফলে গত সোমবার থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ হয়ে গেছে। তবে দেশে প্রবেশের অপেক্ষায় ওপার সীমান্তে দাঁড়িয়ে আছে প্রায় দেড় শতাধিক পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক।

এদিকে গত তিন দিনে আটকে থাকা পেঁয়াজ ইতিমধ্যেই নষ্ট হতে চলেছে বলে জানিয়েছেন হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন।

ভারত সরকার বাংলাদেশে পেঁয়াজ সরবরাহ করবে না এমন সিন্ধান্তে অটুট থাকলেও শুধু মাত্র গত রবিবারে টেন্ডার করা পেঁয়াজ বাংলাদেশে সরবরাহ করবে তারা। এই অপেক্ষায় বুধবার সারাদিনেও পেঁয়াজ রপ্তানি করেনি ভারত।

আদৌ তারা পেঁয়াজ রপ্তানি করবে কি না এনিয়ে সঙ্কিত হিলি স্থলবন্দরে আমদানিকারকগণ। বুধবার সকাল থেকে আমদানি কারকরা অপেক্ষায় থাকে পেঁয়াজ আমদানি হবে কিন্ত রপ্তানি কারকরা জানায়, ভারত কাস্টমসকে অনুমতি পত্র না দেওয়ার কারণে তারা পেঁয়াজ রপ্তানি করতে পারছে না।

এদিকে দেশে পেঁয়াজ প্রবেশ করছে এমন খবরে পাইকারি ও খুচরা বাজারে দাম কমতে শুরু করছে। মঙ্গলবার যে পেঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ৬৭ থেকে ৭০ টাকা। এখন ওই পেঁয়াজই বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা কেজি দরে।

হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন জানান, এ পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজের এলসি করা হয়েছে। গত সোমবার ভারতের হটকারি স্বিদ্ধান্তে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় সে দেশের সরকার।

এতে করে হিলি স্থলবন্দরে পেঁয়াজ আমদানিকারক ব্যবসায়ীরা আর্থিক ভাবে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে। তিনি বলেন, গত বছরেও ভারত সরকার এমনি ভাবে হঠাৎ করে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন