ঝালকাঠিতে আম্পানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, ১৩ হাজার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে

প্রকাশিত: মে ২০, ২০২০ / ০৯:৩৫অপরাহ্ণ
ঝালকাঠিতে আম্পানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, ১৩ হাজার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে

ক’রো’না দু’র্যো’গের মধ্যেই সুপার সাইক্লোন আম্পান নিয়ে আ’ত’ঙ্কিত হয়ে পড়েছে সুগন্ধা ও বিষখালী নদীবেষ্টিত উপকূলীয় জেলা ঝালকাঠির বাসিন্দারা। সকাল থেকে বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়া বইছে।

নদী উত্তাল থাকায় ছোট বড় সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নদীতে জোয়ারের পানি বাড়ছে। এতে আ’ত’ঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র।

আজ দুপুরে শহরের কলেজ খেয়াঘাট এলাকায় গাছ উপড়ে পড়ে একটি বসতঘর ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বিধ্বস্ত হয়েছে। ১০ নম্বর মহাবিপদ সং’কেতের পর ঝালকাঠি সদর ও অন্য তিনটি উপজেলার ২৭৪টি আশ্রয় কেন্দ্রে ১৩ হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছে বলে জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী জানিয়েছেন।

সুগন্ধা ও বিষখালী নদী তীরের বাসিন্দাদের সতর্ক থাকার জন্য মাইকিং করা হচ্ছে। সকাল থেকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হচ্ছে।

দুপুরে জেলা প্রশাসক নদীতীরের সাইক্লোন শেল্টারগুলো পরিদর্শনে যান। সেখানে আশ্রিত মানুষের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ১৩ হাজার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছেন। তাদের জন্য পর্যাপ্ত খাদ্যসামগ্রীর ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন