জরুরি না হলে ঢাকায় প্রবেশ ও বের হওয়া বন্ধ

প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২০ / ০৫:৩১অপরাহ্ণ
জরুরি না হলে ঢাকায় প্রবেশ ও বের হওয়া বন্ধ

করোনাকালে সব কিছুতে এসেছে পরিবর্তন। এই যেমন ঈদুল ফিতরের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি, অথচ ঈদ উদযাপন করতে শহর থেকে গ্রামে যাওয়ার সুযোগ নেই। শুধু গ্রামে যাওয়া নয়, শহরের ভেতরেও খুব প্রয়োজন ছাড়া ঢোকার সুযোগ থাকছে না।

আজ রোববার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গণমাধ্যম শাখা থেকে এমন তথ্য জানানো হয়েছে। ডিএমপি জানিয়েছে, প্রয়োজন ছাড়া ঢাকা শহরে কেউ প্রবেশ করতে কিংবা বের হতে পারবে না। এ ছাড়া একান্ত প্রয়োজনে কাউকে বের হতে হলে তাঁকে হতে হবে তল্লাশির মুখোমুখি।

ডিএমপি আরো বলছে, জরুরি সেবা ও পণ্য সরবরাহ কাজে নিয়োজিত যানবাহন এই নিয়ন্ত্রণের আওতামুক্ত থাকবে। তবে কোনো যানবাহন যদি যথোপযুক্ত কারণ না দেখিয়ে চলাচল করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই ব্যাপারে জানতে চাইলে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘লকডাউনের কারণে প্রচুর ক্ষতি হচ্ছে সরকারের। তবু সরকার সব কিছু বন্ধ রেখেছে। আর আপনি বাইরে বাইরে ঘুরে করোনা বাড়াবেন, ঢাকার ভাইরাস বাইরে নিয়ে যাবেন তা তো হবে না।

তাহলে ক্ষতি করে ছুটি দেওয়ার মানেটা কী? সামনে ঈদ, এখন অনেক মানুষ গ্রামে যেতে চাইবে। কিন্তু তাতে তো করোনায় আক্রান্তের হার আরো বাড়তে পারে। সেটা তো আর হতে দেওয়া যাবে না। কারণ, আমাদের সবাইকে বাঁচতে হবে।’

মফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘অলরেডি আমরা ঢাকায় প্রবেশ এবং বের হওয়ার পথের মোড়ে তল্লাশি চৌকি বসিয়েছি। যারা যাচ্ছেন তারা কেন যাচ্ছেন এবং কী প্রয়োজনে যাচ্ছেন তা শুনছি। যদি মনে হচ্ছে তাঁর প্রয়োজনটা যথোপযুক্ত না, তাহলে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। এ ছাড়া আমরা প্রয়োজনীয় আইন অনুযায়ী ব্যবস্থাও নিচ্ছি। এজন্য নিয়ন্ত্রিত চলাচলের ব্যাপারে নাগরিকদের সর্বাত্মক সহযোগিতা আমরা কামনা করি।’

সূত্র : এনটিভি অনলাইন

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন