যৌতুকের জন্য এ কেমন নিষ্ঠুরতা

প্রকাশিত: মে ১৫, ২০২০ / ০৮:৩৪অপরাহ্ণ
যৌতুকের জন্য এ কেমন নিষ্ঠুরতা

ফুলবাড়িয়া উপজেলার কুশমাইল ইউনিয়নের টেকিপাড়া গ্রামে স্বামী নিষ্ঠু’রতার শিকা’র হয়েছে স্ত্রী পারভীন আক্তার (২৭)। শুক্রবার সকালে যৌ’তু’কের জন্য স্বামী আনিছুর রহমান স্ত্রীকে নি’র্ম’মভাবে পি’টি’য়েছে।

লাঠি দিয়ে মাথায় আঘা’ত করে র’ক্তা’ক্ত অবস্থায় বিনা চিকিৎসায় কয়েক ঘণ্টা ঘরে আটক করে রাখে। বাড়ির অন্যদের আ’হ’ত স্ত্রী’র কাছে যেতে দেয়নি স্বামী। বিকালে পুলিশ গিয়ে ঘর থেকে গৃহবধুঁ পারভীন আক্তারকে উদ্ধার করে হাসপতালে ভর্তি করার ব্যবস্থা করেন।

জানা গেছে, উপজেলার ইউনিয়নের পুটিজানা ইউনিয়নের গাড়াজান গ্রামের মুহাম্মদ আলীর কন্যা পারভীন আক্তারকে পাশ্ববর্তী কুশমাইল ইউনিয়নের টেকিপাড়া গ্রামের মতলেব মিস্ত্রীর পুত্র আনিছুরর রহমানের কাছে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিয়ে দেয়।

সাত বছর সংসার জীবনে তাঁদের দুই সন্তান জন্ম নেয়। বিয়ের দেড় বছর পর থেকে যৌ’তু’কের জন্য চাপ দেয় স্ত্রীকে। এ নিয়ে মাঝে মধ্যে মা’র’পিট করে স্ত্রীকে পিতার বাড়ি পাঠিয়ে দিত।

এলাকাবাসী জানান, আনিছুর রহমান অনেকটা মাদ’কা’সক্ত হয়ে পরে। মাঝে মধ্যে নে’শা করে বাড়িতে স্ত্রীকে মা’র’পিট করতো। কয়েকবার স্ত্রীকে তাঁর বাপের বাড়িতেও পাঠিয়ে দেয়।

পারভীন আক্তারের ভাই শফিকুল ইসলাম বলেন, বিয়ের দুই বছর পর এক লাখ টাকা যৌতুক দিয়েছি বোনের শান্তির জন্য, এরপর কয়েক মাস ভালোই ছিল, এরপর আবারও যৌতুকের জন্য শারিরীক ও মানসিক নি’র্যা’তন করে পারভীনকে।

আজ স্থানীয়রা জানায়, যৌতুকের জন্য বোনকে ব্যাপক মা’র’পিট করে বিনা চিকিৎসায় ঘরে আটক করে রেখেছে। গৃহবধু পরভীন আক্তার বলেন, একজন মানুষ আরেকজন মানুষকে এভাবে মা’রতে পারেনা, কল্পনা করা যায় না, হাতে পায়ে ধরেও রক্ষা পাইনি, লাঠি দিয়ে আ’ঘা’ত করে মাথা ফাঁটিয়ে ঘরে চিকিৎসা না দিয়ে ব’ন্দি করে রাখে, কাউকে কাছে পর্যন্ত যেতে দেয়নি।

ফুলবাড়িয়া থানার এসআই সেকান্দর আলী বলেন, র’ক্তা’ক্ত আহতবস্থায় নি’র্যা’তনের শি’কা’র গৃহবধুঁকে বাড়ি থেকে উ’দ্ধা’র করে হাসপতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশের উপস্থিতি দেখে স্বামী পা’লি’য়ে গেছে। নির্যাতনের ‘ঘটনায় গৃহবধূঁর ভাই শফিকুল ইসলাম থানায় অ’ভি’যোগ দায়ের করেছেন।

সুত্রঃ

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন