ধোনিকে ফিনিশার আমিই বানিয়েছি : গ্রেগ চ্যাপেল

প্রকাশিত: মে ১৪, ২০২০ / ০৭:২৩অপরাহ্ণ
ধোনিকে ফিনিশার আমিই বানিয়েছি : গ্রেগ চ্যাপেল

ক্রিকেট বিশ্বে ফিনিশারের তকমা গায়ে লেগে আছে ভারতের দুটি বিশ্বকাপ জয়ী সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির। অবশ্য ক্রিকেট ক্যারিয়ারটা আ’গ্রাসী মুডে শুরু করেছিলেন ধোনি।

কিন্তু ক্যারিয়ার শুরুর অল্পদিনের মধ্যেই ধোনিকে ঠান্ডা মেজাজে রুপান্তিরিত করেন ভারতের সাবেক বি’র্ত’কিত কোচ গ্রেগ চ্যাপেল। তিনি বলেন, ‘আ’গ্রা’সী ধোনিকে চিন্তাশীল ফিনিশার বানিয়েছি আমি। তাকে বুঝিয়েছি, ম্যাচ শেষ করে আসার আনন্দ কেমন।’

২০০৫ সালে ভারতের কোচের দায়িত্ব নেন চ্যাপেল। এরপর থেকেই ভারতীয় দলে ঝা’মে’লার সৃষ্টি হয়। ওই সময়ের সফল অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীকে সরিয়ে রাহুল দ্রাবিড়ের দলের দায়িত্বে নিয়ে আসেন তিনি।

তার অধীনে খেলার সময় অবসরের চিন্তাও করেছিলেন ভারতের মাস্টার ব্লাস্টার ব্যাটসম্যান শচীন টেন্ডুলকার। এছাড়াও আরও অনেক বি’র্ত’কের জন্ম দেন তিনি। তবে এর মাঝে তার অধীনে দলগত কিছু সাফল্য পেয়েছে ভারত।

আর কিছু খেলোয়াড়দের মৌলিক বিষয়গুলোতে উন্নতির চেষ্টা করেছেন চ্যাপেল। এর মধ্যে ধোনির কথা নিজেই জানালেন চ্যাপেল। তিনি বলেন, ‘ধোনিকে প্রথমবার ব্যাট করতে দেখে আমি হ’তবাক হয়ে গিয়েছিলাম।

সেই সময়ে ভারতের সব চেয়ে আকর্ষণীয় ক্রিকেটার ছিল ধোনিই। এমন সব জায়গা থেকে শট নিত, যা কেউ কোনও দিন কল্পনাও করতে পারবে না। এ রকম শক্তিশালী ব্যাটসম্যান আমি আগে কখনও দেখিনি।’

ধোনির আ’গ্রা’সী ব্যাটিং মন কাড়ে চ্যাপেলের। ২০০৫ সালে জয়পুরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন নম্বরে নেমে ১৫টি চার ও ১০টি ছক্কায় ১৪৫ বলে অপরাজিত ১৮৩ রান করেছিলেন ধোনি।

তিন নম্বরে নেমে ওমন ইনিংসের পরও, পরের ম্যাচেই ধোনিকে ছয় নম্বরে নামান চ্যাপেল। ওই ম্যাচে ধোনিকে ম্যাচ শেষ করার চ্যালেঞ্জ দেন চ্যাপেল।

তিনি জানান, ‘জয়পুরের পর পরের ম্যাচটাই ছিল পুনেতে। আমি ধোনিকে বলেছিলাম, তুমি প্রতিটা বলই বাউন্ডারি মারার চেষ্টা কর কেন? বুঝে খেলার চেষ্টা কর। তাই ধোনিকে বলা হয় ম্যাচ শেষ করে মাঠ ছাড়ার চ্যালেঞ্জ নিতে।

যে ধোনি আগের ম্যাচে পাওয়ার হিটিং করেছিল, পরের ম্যাচে সম্পূর্ণ বিপরীত খেলা খেলল। ৪৩ বলে অপরাজিত ৪৫ করে ভারতের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়ে ধোনি। সেখান থেকেই ও ম্যাচ শেষ করার উপায় শিখে যায়।’

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন